সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

কমলা-লাল,সুপারী-শাড়ী

মহানন্দ ৭ মার্চ ২০২০, শনিবার, ১২:১৮:০৩অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৩ মন্তব্য

জীবনের প্রথম টিউশনির টাকা দিয়ে কি করব আগেই ভেবে রেখেছিলাম। সিলেট বন্দরবাজারে খুব ভালমানের সুপারী পাওয়া যেত ।কমলা,হলুদ রংগের বেশ কিছু সুপারী ৫০০ টাকা দিয়ে কিনলাম আম্মার জন্য। আম্মা খুবই খুশী হয়েছিলেন সুপারী পেয়ে ,আরও তৃপ্তি পেয়েছিলেন ছেলে নিজের টাকায় কিনেছে বলে।আম্মা লাল এবং লালের কাছাকাছি রংয়ের শাড়ী পড়তে পছন্দ করতেন। প্রতি ঈদে আমাদের ভাই-বোনরা সবাই আম্মাকে উনার পছন্দের রংয়ের শাড়ী দিতাম কিন্তু উনি ঈদের দিন আমার দেওয়া শাড়ীটি পড়তেন।কারন আমি শাড়ীর তেমন কিছু না বুঝলেও আম্মাকে কোনটিতে মানাবে বুঝতে পারতাম এবং নিজে কিনতাম। আম্মা সবসময় পায়ে আলতা দিতেন…ঘরের মধ্যেও লাল স্যানডেল পরতেন । গত ১৭ই জানুয়ারী 2019 উনি আমাদের ছেড়ে চিরতরে চলে গেলেন।আম্মার ডাক নাম ছিল জবা। উনার কবরের উপর রক্ত রাংগা জবা ফুলের গাছ লাগাবো এবার বাড়ীতে গিয়ে। মা কে হারিয়ে আমার উপলদ্ধি হল কোন সন্তানের কাছে তাঁর মা কখন মৃত হতে পারে না ,মা ছাড়া সন্তানের কোন অস্তিত্ব নেই ,থাকতে পারেনা ।।

২৯১জন ১৮১জন
16 Shares

১৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য