আমি ও স্বার্থপর। রোজ ঘুমুতে যাওয়ার আগে ভাবি, কাউকে কষ্ট দিবোনা, কেউ কষ্ট দিলে নিবোনা। সকাল হলেই দিতে যদি ও কার্পণ্য করি, নিতে দু’হাত পেতে রাখি। রোজ ভাবি ক্ষমা নিব এবং দিব, তা-ও হয়না, আত্মঅহম এসে বাধ সাধে। রোজ ভাবি, ভালোবাসার ভালোবাসাকে ভালোবাসব,কিন্তু ঈর্ষা দলা পাকায়, কষ্টের মেঘ জমে বুকের বাঁ পাশে। আমি আর স্বচ্ছ হতে পারিনা। দিনশেষে আমার ভেতর সেই স্বার্থপরই ঘুমায়।

তারপর ভাবি আচ্ছা নাহয় কষ্টই পাব এর চেয়ে বেশিত নয়। কষ্ট যে প্রতিদিন, প্রতিমুহূর্তে একবার করে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দেয় সে বোধকে আমি কাজে লাগাতে পারিনা। অতঃপর আমি স্বার্থপরের পাশাপাশি কাপুরষ হয়ে কুণ্ডলী পাকিয়ে একফোঁটা ঘুমের জন্য হাহাকার করি। ঘুম আসে বা না আসে আমি হাত পেতে থাকি, অবশেষে হয়তো নিদ্রা দেবী সুপ্রসন্ন হন। আমি স্বার্থপর, কাপুরষ, ভিখিরি হয়ে ঘুম থেকে জেগে উঠি। গ্লানির বোঝা কাঁধে চেপে কাজে – অকাজে সময় ক্ষেপণ করে,ঝুলিতে  অকর্মণ্য খেতাব যোগ করে রাতের ব্ল্যাকহোলের দিকে ধাবিত হই ঘুমের লোভে। অতঃপর আমার প্রাপ্তির ঝুলি ভরে কতগুলো দুর্নীতিগ্রস্থ শব্দে।

অথচ আমার নির্বাণ হওয়ার কথা ছিল।

১৪৫জন ২৭জন
0 Shares

৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য