কক্সবাজার টু সেন্টমার্টিন

কামাল উদ্দিন ২৩ জানুয়ারী ২০২১, শনিবার, ০৪:০৮:১১অপরাহ্ন ছবিব্লগ ১০ মন্তব্য

কক্সবাজারে যেতে এখন মন আর আগের মতো সায় দেয় না। আমার ইচ্ছে নতুন জায়গা দেখা, কিন্তু ছেলেদের ইচ্ছাতেই আবারো যেতে হলো কক্সবাজার। কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিন যেতে ঘোর আপত্তি থাকলেও না গিয়ে পারলাম না, এমন কি অবশেষে বাধ্য হয়ে বাংলাদেশের মানচিত্রের দক্ষিণের সর্বশেষ বিন্দু ছেড়া দ্বীপ পর্যন্ত যেতে হয়েছিলো। যদিও এর আগে আরো দুইবার ছেড়া দ্বীপে পা রাখার সৌভাগ্য আমার হয়েছিল।

কক্সবাজার থেকে পৃথিবীর দীর্ঘতম মেরিন ড্রাইভ সড়ক ধরে টেকনাফ আর টেকনাফ থেকে জাহাজে চড়ে সেন্টমার্টিন যাওয়ার পথ দুটিকে আমি বলব অবশ্যই স্বর্গ। মেরিন ড্রাইভ সড়কের এক পাশে সাগরের উত্তাল ঢেউ স্বগর্জনে এসে মাথা কুটে মরছে, অন্যপাশে সবুজ প্রকৃতি আর উঁচু নিচু পাহাড়ের মিতালী। আর টেকনাফ থেকে জাহাজে চড়লে নাফ নদীর নীল পানি আর সীমান্তের এপারে ওপাড়ের পাহাড়গুলো চোখ জুড়ায়। সেই সাথে জাহাজের পেছনে পেছনে ছুটে চলা সীগার্লদের কিচির মিচির ভ্রমণটাকে দেয় অন্য রকম একটা আবহ। আর তাই এই জায়গাগুলোতে রয়েছে আমার অন্যরকম ভালোলাগা। সেই ভালোলাগা পথের কিছু ছবি নিয়েই আমার আজকের ছবি ব্লগ।


(২) কক্সবাজার থেকে টেকনাফ যাওয়ার মেরিন ড্রাইভ সড়ক, আমার দেখা সব থেকে চমৎকার এই সড়ক ধরে মাইক্রোবাসে রওয়ানা হলাম টেকনাফ হয়ে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে।


(৩) যাওয়ার পথে ডান পাশে বিশাল নীল জলরাশি পূর্ণ আমাদের বঙ্গোপসাগর, তার বালিয়াড়িতে উঁকিঝুকি মারছে জেলেদের কুঁড়েগুলো।


(৪) আর বাঁম পাশে পাহাড় আর নয়নাভিরাম সবুজে ভরা এক অপার্থিব পৃথিবী।


(৫) টেকনাফ থেকে জাহাজে চড়ার জন্য পারি দিতে হয় এমন লম্বা কাঠের জেটি।


(৬) নাফ নদীর জলে অলস বসে আছে বিজিবির বোট।


(৭/৮) আকাশে কালো ধোয়া উড়িয়ে নাফ নদীর জল আলোড়িত করে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে আমাদের জাহাজগুলো রওয়ানা হয়ে গেলো।


(৯/১০) নদীর জলে ড্রাম ভাসিয়ে তাতে বসে মাছ ধরছে স্থানীয় কিছু লোকজন।


(১১/১২) একটা দুটো করে এক সময় শত শত গাংচিল প্রতিটা জাহাজের পিছু নিয়েছিল পর্যটকদের দেওয়া খাবার খাওয়ার লোভে।


(১৩) পাহাড়ের পাশে একটা ইন্ডাষ্ট্রি ও তার জেটি।


(১৪) এটা শাহপরীর দ্বীপ।


(১৫/১৬) আমাদের জাহাজ নাফ নদীর যেখান দিয়া যাচ্ছিল তার আরও বাংলাদেশের ভেতরের দিকে দেখলাম মিয়ানমারের পতাকাবাহী জেলেরা মাছ ধরছে, ব্যাপারটা আমার বোধগম্য হলো না।


(১৭) এক সময় আমাদের জাহাজ এসে ভীড়ল সেন্টমার্টিনের জেটিতে।


(১৮) ছেলেদের বায়নায় বাধ্য হয়েই স্পীডবোট নিয়ে ছুটে গেলাম ছেড়া দ্বীপের দিকে।


(১৯) ছেড়াদিয়া দ্বীপের একাংশ, এটাই বাংলাদেশের সর্ব দক্ষিণ বিন্দু, এর পর শুধুই অথৈ জলরাশি।


(২০) সেন্ট মার্টিনের জেলেরা শুটকি শুকাচ্ছে রোদে।


(২১) জাহাজে করে শেষ বিকালে যখন ফিরছিলাম তখন গাংচিলেরা আমাদের বিদায়ী শুভেচ্ছা জানাচ্ছিল।

১৮৯জন ৭৯জন
0 Shares

১০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য