এ শরৎ

প্রদীপ চক্রবর্তী ১ অক্টোবর ২০২১, শুক্রবার, ০৭:৫০:২৫অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৪ মন্তব্য

এ শরৎ চৈত্রদগ্ধের মতো!
এখানের শান্ত নদী মৃদুভাবে ঢেউ খেলে।
দূর হতে আসে অহমীয়া লোকগীতির সুর।
কি সুন্দর তার ছন্দ!
মন ভুলানো বাঁশির রাগ।
যে বাঁশির রাগে কিশোরী ঘর ছেড়েছে। আজও খুঁজে ফিরে তন্নতন্ন করে সে বাঁশিওয়ালাকে।

মাঠভর্তি ইরিধান, নদীর তীরে কাশফুল আর ধানক্ষেতের আলপথ জুড়ে দূর্বাদল।
সেসব কিছু দক্ষিণা হাওয়ায় এক্কাদোক্কা খেলে মিতালী মুখর মুগ্ধতা নিয়ে।

স্কুলে সদ্য পাঠশালা বসেছে।
সেখানে আসে কুমোরটুলি থেকে সুধাময় মৃত্তিকার গন্ধ।
এ গন্ধ আগমনী দেবীর।
এ গন্ধ মানে দেবীর পায়ে পুষ্পিত শরৎঞ্জলি।

এদিকে গত হওয়া বসন্তের গুটি এখনো সারে নি।
এখনো তীব্র যন্ত্রণা।
এবার যখন তুমি এলে পরিপূর্ণ অসুখটা সারাবে বলে,
আমিও তোমায় চেয়ে নিলাম।

তোমাকে চাইতে গিয়ে আমার ক্ষয় হয়ে যাওয়া আয়ু পুনরায় দীর্ঘজীবী হয়ে উঠেছে।
যেখানে ঈশ্বরের পরিপূর্ণ আশীর্বাদ আর তোমার নিষ্পাপ ভালোবাসা ছিল।

এ শরতে যখন আবার দেখা হবে,
তোমার চুলের খোঁপায় গুঁজে দেবো সুনীলের একশত আটটা নীলপদ্ম। যে পদ্মফুলের গায়ে কখনো ভ্রমর আর প্রজাপতি আলিঙ্গনে জড়ায় নি!

ঠিক তোমাকে চাই,
এ সুন্দর স্নিগ্ধ শরতে।
যেখানে শান্ত নদী মৃদুভাবে ঢেউ খেলে।
যেখানে বসে তোমাকে অনুভব করে লেখা যায় শতসহস্র কবিতা।

৫৫২জন ৪৫০জন
0 Shares

১৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ