এক হালি কবিতা

সুরাইয়া পারভীন ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০, শনিবার, ১১:০৮:৫১অপরাহ্ন কবিতা ২২ মন্তব্য

নতুনের হাতছানি

যদি নতুন কোনো হাত-
হাতছানি দিয়ে কাছে ডাকে,
যদি ছুটে যেতে ইচ্ছে করে,
নতুন কারো মায়ার টানে!
তবে যাও তুমি যাও চলে,
বাড়িয়ে দাও হাত তাহার তরে।
সন্ধ্যা নামার আগে…
যদি আর নাহি আসো ফিরে,
পরিচিত কোনো নীড়ে!
যদি আর ভালো নাহি বাসো
আগের মতো করে!
তব মনে রেখো, মনে রেখো
যে তোমারে ভালোবাসে;
সে তোমারই থাকবে যুগ যুগ ধরে,
তোমাকেই ভালোবাসবে চিরতরে।

আদরমাখা ভালোবাসার স্পর্শ

জানো, একমুঠো ভালোবাসা পেলে
আমার ভীষণ প্রজাপতি হতে ইচ্ছে করে!
খুব ইচ্ছে করে প্রজাপতির মতো-
রঙিন ডানা দুটো মেলে বনে বনে ঘুরে ঘুরে,
লাল নীল অজস্র মোহনীয় ফুলের ঘ্রাণে
নেশাতুর উন্মত্ত মাতাল হতে!

জানো, একচিলতে আদর পেলে
আমার ভীষণ লজ্জাবতী লতা হতে ইচ্ছে করে!
খুব ইচ্ছে করে লজ্জাবতীর লাজুক লতার মতো-
আলতো স্পর্শে লজ্জায় নেতিয়ে যেতে!

গুপ্ত স্পৃহা
সে কি ভীষণ তাড়া!
ক্লান্ত শ্রান্ত অবসন্ন ফেরারী-
পাখিদের নীড়ে ফিরবার?

জানো,
সেদিন আমারও তাড়া ছিল;
ভীষণ তাড়া ছিল…
তাহার বুকে মাথা রাখবার!
তাহার হাতে হাত রেখে-
চোখে চোখে চেয়ে থাকবার!
তাহার অধরে অধর রেখে-
নিঃশ্বাসের বিষে নিষ্পেষিত হবার!

আজ আর কোনো তাড়া নেই
বুকে মাথা রাখবার বাসনা নেই
চোখে চোখ রাখবার অভিলাষ নেই
অধরে অধর রাখবার গুপ্ত স্পৃহা নেই

স্বেচ্ছায় পরাজয়

জানো, একদিন সূর্যাস্ত লগ্নে
আধো-অস্ত যাওয়া সূর্য আর মেঘের-
লুকোচুরি খেলা দেখছিলাম।
কি যে ভালো লাগছিল আমার!
যেনো ওরা মরিয়া হয়ে উঠেছিল,
একে অপরকে হারিয়ে দিতে।

হঠাৎ কি যে হলো!
দু’জনেই স্বেচ্ছায় পরাজয় মেনে নিলো।
সূর্য ডুবে গেলো আর মেঘ হাওয়ায় ভেসে ভেসে
চলে গেলো দূর থেকে দূরে; বহুদূরে
আমার দৃষ্টির অন্তরালে!
তারপর অনেক খুঁজেও আর-
মেঘের দেখা পাইনি!

১৮১জন ৪৯জন
0 Shares

২২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য