এক শিশি বিষ-কান্না

ছাইরাছ হেলাল ১৫ জানুয়ারী ২০১৯, মঙ্গলবার, ০৯:৪৬:০৭পূর্বাহ্ন গল্প ১৮ মন্তব্য

“হে মহামান্য জিউস
আমিই আমাকে খুন করে এসেছি
আমাকে শাস্তি দিন, আমিই
বুকের কুসুমে ঢেলেছি এক-শিশি বিষ।“

চির-ঘুমের মানুষ ঘুমায় দু’চোখে বন্ধ রেখে,
শখের বিষখোর ঘুমায় উঁকি-মারা-চোখে,
বিষ খেয়ে বেশি বেশি ঘুমায়, ঘুমের ভান করে;
জিউস সব-ই দেখেন, বোঝেন, বলেন একটু একটু করে।

বিষ অমৃতটুকু ভাগ নিয়ে ভেগে যাবে বলে বসে আছে
সুনসানের দুপুর-ঘুমে জিউস ঘুমুবে নিশ্চয়ই।

বিষ-বুদবুদ সহানুভূতিরবশে ছুঁড়ে দেয় এক ঝলক উড়ন্ত ভেল্কিবাজি,
দূর যবনিকার আড়ালে থাকা হিমেল মতিগতি, জিউস জানেন।

মরে যাওয়ার ভাব ধরে এসব হিজিবিজি ধুয়ে
কেবলা মুখো হয়ে মরা-কান্নার ঢং ফং জিউস জানেন/বোঝেন।

তবুও উচ্চকিত কবিতা ছড়িয়ে যাক দিগন্ত থেকে দূর দিগন্তে
অকস্মাৎ ফেটে পড়া রোদ্দুরের মত,
মাথা মুড়ে বসে থাকা মতি-গতিহীন বিরাম চিহ্নের মত
শীতার্ত বিষমকামী আত্মরতি এড়িয়ে।

————————————————————–

জিউস বলেন
শিশি/ফিশি নয়, ড্রাম ড্রাম বিষ এস্তেমাল করে এর আগেও
পাতকী হতে চেয়েছে আরও অনেকে ভাব ধরা কবিতা-নাবিক, হয়নি তা।
পুকুর/ফুকুর বা নদ/নদী নয়, বিষের সাগরে হাবুডুবু খেতে খেতে যদি মরার সাধ অটুট থাকে,
তখন না হয় কবিতার ঠিকানা দেয়ার কথা ভাবতে বসা যাবে!!
‘এ এ,, মনে করেন, ল্যাকতে ভাল্লাগে। খুশিতে, ঠ্যালায়,ঘোরতে’

৪৫২জন ৪৫২জন
0 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ