একান্নবর্তী

এস.জেড বাবু ৩০ জানুয়ারী ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১০:৩৫:৫৪পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৯ মন্তব্য

কাল্পনিক চরিত্রগুলিকে সাজিয়ে গুছিয়ে জনসম্মুখে উপস্থাপন করেন যিনি- তিনি পরিচালক

কাল্পনিক মুখুশে জড়িয়ে জীবনের বাস্তবতায় নিজেকে উপস্থাপন করেন যিনি- তিনি অভিনেতা / অভিনেত্রী

প্রতিজন পরিচালক হয়ত অভিনয় করতে জানে না-
কিন্তু প্রতিজন অভিনেতা অভিনেত্রী সমাজ সংসারে ঘটে যাওয়া এক-একটি নাট্যাংশের সফল পরিচালক।

তাদের অদৃশ্য ইশারায মঞ্চায়ীত নাটকের ফলে, চিরতরে বদলে যায় হাজারো আত্মস্থ পরিবারের অখন্ডিত নকশা।

যদিও দুনিয়ার ইতিহাসে কোন জাদুকর- টুকরো হয়ে যাওয়া সংসারের মানচিত্র এক পৃষ্ঠায় এক জীবনে আঁকতে পারেনি কোন কালে।

নির্মম হলেও সত্য যে, সংসার জীবনে এমন নকশাকার দের বেশিরভাগই “বড় বৌ” বা “মেঝ বৌ” অথবা “ছোট বৌ” সম্বোধনের খ্যাতিমান পরিচালকদের যে কোন একজন। যেখানে “ঘুমন্ত” প্রযোজকদের ভূমিকায় থাকে আমাদের মতো পুরুষ নামের কাঠের গুটি ।

সত্যি বলতে- “একান্নবর্তী সংসার” টাকে চিতায় শুইয়ে দিয়ে, কাঠকয়লা আর কেরোশিন ভাবি সাহেবা’রা জোগাড় করে দিলেও, নিজের হাতে ম্যাচের কাঠি ভাইজান’রা ই জ্বালায়।

হাস্যকর হলেও জানি-
রাজা এক কদম হাঁটলেও রাণীর দৌড় দাবাঘরের এপাশ থেকে ওপাশ ।

একটেবিলে তৃতীয় দফায় খেতে বসে, বাটির তলায়  তরকারির শেষাংশ চেটেপুটে খাওয়ার মধ্যে যে সুখ অন্তর্নিহিত, তা শুধু একটি সুবিশাল একান্নবর্তী পরিবারের গৌরবান্বিত সদস্যই বলতে পারবে।
লবনদানীর কোনায় রাখা আধাখাওয়া কাঁচামরিচটা ইশারায় কত কথাইনা বলে ॥

-০-

১৯৩জন ৭১জন
33 Shares

১৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য