সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

একাকিত্বের ভাবনা

স্বপ্নীল মেঘ ২৮ মে ২০২১, শুক্রবার, ১১:০৪:২৫অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৯ মন্তব্য

বাকির খাতায় বা কি আছে বাকি? আমরা আমৃত্যু অসুস্থ।  কেউ প্রকাশ করি কেউ চেপে রাখি।
প্রত্যাখ্যানের প্রতিটি মুহূর্ত বিষাদের পর্দা ভেদ করে অন্তরে
ছুরিকাহত করে আমরা বলতে পারিনে, সইতে পারিনে।
এভাবেই জীবন যায় তাবৎ বস্তুর রং বদলায়-মলিন থাকে
শুধু আমাদের দুঃখ গুলো।

প্রতিটি অপমানে আমাদের হৃদয় ক্ষরণ হয়েছে। কেউ জানতো
না৷ আকাশ জানে, নিস্তব্ধ রাত্রীর প্রতিটি মুহূর্ত জানে। বিদীর্ণ
নিশ্বাস জানে চুপ থাকা কতো কঠিন কতো বেদনার! এভাবেই
বুঝি বেঁচে থাকতে হয়! আমরা জানিনে কেউ জানিনে!
মায়ার তাগিদে আমরা পেট জুড়ে নিশ্বাস নেই-জানিনে
কিভাবে বেঁচে থাকতে হয়!

অবহেলার প্রত্যেকটি লাইনে ‘ব্যথা’ রক্তাক্ত কালি হয়ে স্মরিত
হয়ে আছে নির্মম কাব্যে। আত্মপ্রকাশে অনিহা সত্বেও বুক ফেটে
চিৎকার বের হয়। কেউ শুনতে পারেনা। নির্ঘুম তারারা শুনে, নির্বোধ প্রকৃতি শুনে তাদের কিছু করার থাকেনা। তারা নিস্তব্ধ-
তারা নিশ্চুপ। আমরা আমাদের জন্যেই বা কতোটুকু করতে পারি?
কতোটা অকৃতজ্ঞ হলে এভাবে বেঁচে থাকা যায়?

জীবনের গভীর জয় প্রকাশ করবার জন্য আমরা যে আকাশের
সীমানায় কুয়াশায় কুয়াশায় দীর্ঘ বর্শা হাতে কাতারে কাতারে
দাঁড়িয়ে আছি এই বা ক’জন চক্ষুপাত করেছে?
প্রেমের ভয়াবহ স্তম্ভ তুলবার জন্যে এতো আয়োজন আমাদের!
দিনশেষে রাত্রির অগ্রভাগে আমাদের একার’ই সব দায়িত্বের
হিসেব মিলেতে হয়! কেউ নিবেনা এ ভাগ, কেউ সইবেনা এ দায়।

জীবন নিষ্পলক চেয়ে থাকা স্বপ্নের ঘোর, জীবন নিদ্রাহীন এক অন্ধকার রাত্রির যন্ত্রণা। অপেক্ষায় থাকা প্রেয়সীর কালো চুল বিচরণ। আত্মপ্রেম ই হোক জীবনের খুঁটি, বেঁচে থাকার শক্তি। নচেৎ নিশীথের আঁধারে বিষাদের বিষাক্ত ছোবলে মরে যেতে হবে আমাদের।

ছবিঃ সোনেলা ব্লগ

২১৪জন ৯৩জন
0 Shares

৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য