একটি রাঙ্গা পিরান

ছাইরাছ হেলাল ৭ এপ্রিল ২০১৯, রবিবার, ০৪:০৫:৩৮অপরাহ্ন রম্য ৩৮ মন্তব্য

আকাশ থেকে নেমে এলো এক রাত্রে গোল গোল চোখ!!
এমন আকাশি গোল-গোল বা লম্বা-ব্যাঁকা চোখ নেমে আসতেই পারে, আসেও। যেখানে আসে, যাদের জন্য আসে তাদের কান্না আপনারা লক্ষ্য করলেই শুনতে পাবেন, মিহি রেশম রেশম কান্না, চিৎকার-কান্না বারণ, আহা সে কী এক মনোহর ফাপর!! দূরে দাঁড়িয়ে মজা নিতে পারলে মন্দ লাগে না, তবে সাবধান এ বড় খতরনাক বিষয়াশয়, সেবার গিয়েছিলাম সে রাজ্যে ভাল্লাগে ঠ্যালায় ঘোরতে!! আসছি পরে!!

যা বলছিলাম, আকাশ থেকে নেমে এসেছে এক রাঙ্গা পিরান!! বাহ বাহ্‌, কিন্তু ধরা দিচ্ছে না, ইঁদুর বিড়াল না, তব লুকোচুরি ভাব। মন্দ কী, চলুক না। একটু পাতলা দিলাম, কাজ হলো। রাঙ্গা ধরা দিল। যাক, বেশ ফুরফুরা ভাব নিয়ে লিখে ফাটিয়ে দেব ভাব নিয়ে ইতিউতি করছি, করছি। পিরানের টানে ফিরে এলাম, একী!! টান টান হয়ে বিড়াল ঘুমুচ্ছে। ঠিক আছে চলুক ঘুম।

আকাশ রাজ্যে গিয়েছিলাম একবার বিশেষের নিমন্ত্রণে, ফাইন ছিল সব কিছু, শুধু ঐ ওদের অত্যাচার ছাড়া, দেখলাম এক রাজপুরুষ দিব্বি গায়ে ফু দিয়ে হনহনিয়ে যাচ্ছে। দুই তিনটে অপ্সরী পাশ দিয়ে হেঁটে যেতে যেতে কনুই চালিয়ে দিল, দিব্বি চলে যাওয়ার ভান করে যেন কিছুই হয়নি, দূরে দাঁড়িয়ে হেসে গড়িয়ে পড়ছে, বেচারা পাঁজর চেপে মাটিতে বসে কাতরাচ্ছে, কোকাচ্ছে!! এটিই এখানে অসুবিধার দিক, অবশ্য অন্য ব্যবস্থাও আছে জেনেছি!!

বিড়াল ঘুম শেষে, আবার রাঙ্গা পিরান, আহা সে কী রকম-সকম। বেশ জেল্লাদার, কে আর কাকে পায়, এই যে আকাশি ট্রাফিক এ কিন্তু ওয়ান ওয়ে, উপ্র থেকে শুধুই আসে, আসে কিছুটি যায় না। তাই বেশ মজাই মজা!!
পিরানের সাথে ভাব হয়ে গেছে, এবার শ্রী অঙ্গে ধারণ! ধারণ শেষে এ এক ঝিনুক সৌন্দর্য। শামুকের মত এঁটে বসেছে, মন্দ লাগছে না। জীবন বড়ই সৌন্দর্য। কেটে যাচ্ছে সময় আনন্দ আনন্দে, আনন্দ-পিরানে;
হঠাৎ মনে হলো কে যেন বুকে চেপে বসছে, ক্রমান্বয়ে। গলায় ও চাপ বাড়াচ্ছে!! দ্রুত পিরান খুলে ফেললাম, সে হাসছে। মিট মিট করে। কী আর করা, বালিশ হীন আমি এবার পিরানটিকে বালিশ বানিয়ে ঘুমিয়ে পড়লাম, দ হয়ে। ঘুম ভেঙ্গে গেল, বালিশ পিরান বুকে শুয়ে আছে। আর কাহাতক সহ্য করা যায়।

একবার এসেছিল সবুজ পিরান, বেশ ছিল, বেশ কী করে থাকে, দস্যি বন-বানরের নজরে জীবন ফালা ফালা।

রাঙ্গা পিরানের একটি রফা হওয়া দরকার। দ্রুত গুটিয়ে হাতে নিলাম, আর নিলাম এক বোতল পানীয়।
প্রথমে ঢক ঢক শব্দ, তারপর কোৎ করে একটি শব্দ। অল কোয়ায়েট।
শান্তি শান্তি, রাঙ্গা পিরান এবার ঘুমে ঘুমায়।

ছবি, সংগৃহীত!!

৪২৪জন ১০২জন
11 Shares

৩৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য