একজোড়া কাব্য

বন্যা লিপি ১৪ মার্চ ২০২১, রবিবার, ০১:০৮:৫২পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৬ মন্তব্য

১-

ঝিমিয়ে পড়া রাত্তির জানে কোথাও ছুটছে নক্ষত্রের ছুটে চলা।

জেগে থাকা পাপড়ি জানে কখন ফুটবে আলপিনের আগায় একটাই পৃথিবীর সুর্য। নির্ঘুম চোখের পাপড়ি জানে কোন শিশিরের অপেক্ষায় কেটেছে চক্রযানের চরে রাত। প্রতিশব্দের প্রতিটি অক্ষরে লিপিবদ্ধতায় গেঁথে যাওয়া কিছু প্রশ্নাতীত বন্ধন, দম নিতে থাকে প্রথম ঝড়ের আগমুহুর্তে!  দুর্বোধ্যতার প্রাচীরে গাঁথা হয়ে যায় নিঝুম বনের স্বাক্ষর।

উপমায়িত শব্দের পিঠে ভর করে করে জলাঙ্গী ঢেউ তোলে নিস্তরঙ্গ  বিতর্কিত মোহনার  নাম পেতে।

২–

লুটিয়ে পড়া মেঘের আঘাতে পাহাড়ের বুক ভেজে ব্যস্ত নাগরিক, জঙ্গল ভেজে পয়লা ঝড়বৃষ্টির শুভাগমনে।
চুপসে থাকে ভিজে দাঁড়কাক ; ফেরিওয়ালার হাঁকডাক! মেঘ পাহাড়ের সন্ধিক্ষণ!

ঋতু বদলে যায়, চলে সান্ধ্য বাতির নিমন্ত্রণ
ফিসফিস করে ল্যাম্পপোস্টের তারে ফিঙে পাখির সুর বাজে- কান্নার জল ধুয়ে নেয় আসন্ন বৈশাখী ঝড়!
রাস্তার উপরেই উনুনের আঁচে জ্যান্ত মাছের টুকরো
মৃতদের করে উপহাস।
টেবিলে রাখা পানির বোতল কমে যেতে থাকে তৃষিতের গলায়।
অসমাপ্ত উত্তরের কাছে ঘড়ির কাঁটা ঘুরে যেতে যেতে বলে যায়
তবুও, – আজ ভীষণ ভালো আছি—–

৩০৪জন ১৫৯জন
10 Shares

১৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য