ইম্প্রেশন গল্প, প্রেম

দালান জাহান ২৭ নভেম্বর ২০২০, শুক্রবার, ০৯:২২:৫৫অপরাহ্ন ছোটগল্প ১৬ মন্তব্য

ভর দুপুরে তৃষ্ণার্ত পথ কাঁদি কাঁদি ডাবে ডোবে গেল । চৈত্রের রোদে ঘামের নদী থেকে হেঁটে এলো বর্ষার লালচে পুঁটি। প্রণয়ের সুর ভেসে গেলো কেন্দ্রে কেন্দ্রে । কমলার কোষে জ্বলে উঠলো অস্তিত্বের আগুন । তিন দিনের মাথায় তাবু চিরস্থায়ী হলো। কেউ পেল আর কেউ হারালো । স্নেহ আর ভালোবাসার দায়ে পৃথিবী ছেড়ে গেল ঘরের সবচেয়ে বড়ো টাওয়ারটি ।

পাঁচটি আঙুল জড়িয়ে ধরলো ম্যানগ্রোভ কোলাহল। নতুনের আগমন সবসময় উজ্জ্বল। আনন্দ করতালে পেরিয়ে গেল বছর। সেদিনের শিশু মেয়েটিও জন্ম দিল আরেক শিশুর।

এদিকে বাড়ির কুকুর মন্টু একাই ছিলো বছর ধরে । তপ্ত দুপুরে জিহবা বের করে বসে থাকে রোজ । রেলের বগির মতো নড়ে তার পেট। আনমনা উদাসীন বেসেলর। হঠাৎ করেই ওপাড়ার সুখী সঙ্গী হলো তার। বেশ জমেছে এবার সমগ্র এলাকায় তাদেরকে এখন সুখী দম্পতি বলা যায়।

আরও বছর পরে নক্ষত্র কেঁদেছিলো । মমতার দায়ে বুকের বালিশে জমেছিল অপেক্ষার লবন । সে বছর ছেলেটি বিদেশ গেল অবরুদ্ধ গরম বাতাস আর ডাকিনী শাশুড়ির জ্বালা যন্ত্রণায় বাসা বাঁধলো শরীরে হৈমন্তীর রোগ। ছেলেটি ফিরে আসার পর প্রমাণিত হলো পরকীয়া অভিযোগ। গভীর এক অন্ধকারে আঙুলগুলো ফুঁসলে ধরলো মেয়েটির গলা। দড়িতে ঝুলিয়ে দিলো ভালোবাসা।

পড়শির শত্রুতার ফাঁদে মন্টু সাবান খেয়ে মরেছে দুদিন হলো ।পতিত ভূমিতে চাপা দিয়েছে বাড়ির লোকেরা।একে একে সপ্তাহ গেল। সুখী আর বাড়ি ফিরে না । যেন তার সবকিছুতেই ঢুকে গেছে কাল । নাওয়া-খাওয়া ছেড়ে পড়ে রইলো কবরের পাশে। যতক্ষণ না তার আত্মা ছেড়ে গেল তাকে।

 

 

৭০২জন ২৪০জন
273 Shares

১৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য