#ইচ্ছে তুমি কাব্য,ইচ্ছে আমি তোমার।।।
মানুষের ইচ্ছে আহলাদগুলো কচু পাতায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা জলের মতো।লেগে আছে হৃদয় মলাটে,তবুও মনে হয় এই বুঝি টুপ করে ঝরে যায়।প্রতি সেকেন্ডে লক্ষ লক্ষ ইচ্ছে বিলাসী জীবনের হিসেবী যাপন শেষ করে ওপারে চলে যাচ্ছে চিরন্তনী ঘুমে নিবিষ্ট হওয়ারজন্য।আমিও যাবো তুমিও যাবে।
কতো জনের কতো ইচ্ছেই অপূর্ন থেকে যাচ্ছে।
মানুষের সবচেয়ে বড় কষ্টের নাম,ইচ্ছে পূরন না হওয়ার কষ্ট।খুব খুব কম ইচ্ছে পূরন হয় যাপিত জীবনে।অনেকে ইচ্ছে বুকে পুষে কয়লার স্তুপেও পরিনত হচ্ছে।
আমার মায়ের ইচ্ছে ছিলো বাবা বাড়িতে পড়ে থাকার যন্ত্রনা ভুলে ছেলের বাড়িতে বসত গড়ার।ছেলের হাতের ইনকামে বাজার করা কেনাকাটা করা অমুক তমুককে উপহার সামগ্রী কিনে দেয়ার।মানুষের মুখে অনেক কটাখ্য-বান শুনতে হতো ওনাকে।বালক বয়সে ওই চোখ ঝরা অশ্রুর মানে অনুধাবন করতে পারতাম না।

সেই মা আজ বেঁচে নেই।অথচ আমি বুঝতে শিখেছি অমন নোনা জলের অর্থ।এই বুঝ দিয়ে কিছুই হবেনা আর।তাই আর ইচ্ছে করেনা বাড়ি বানাতে,ইচ্ছে করেনা চাকরি করতে।মন থেকেই সায় দেয়না এসব।কি হবে এসব দিয়ে!মাতো নেই।তবুও চাকরি করছি বেঁচে থাকার জন্য।মায়ের মতন এমন মহৎ উপহার যাদের জীবনে এখনো আরাধ্য আছে,তারা যেনো এই বিষয়গুলো হৃদয় স্বচ্ছতায় উপলব্ধি করতে পারে।সাধেই কি আর কবিতার সাথে প্রেমে নিমগ্ন হয়েছি।আমি কবিতা লিখিনা।কথাগুলোই কবিতা হয়ে বেদনা ঝরায়।জীবনের এই পর্যায়ে এসে মনে হয়_কবিতা ছাড়া বেঁচে থাকা খুব খুব দূরুহ সাধ্য।অনেক কিছুই নেই আজ,তা নিয়ে আফসোস নেই।কবিতাই বেঁচে থাকার জন্য যথেষ্ট,আমার যাপন অক্সিজেন।কিন্তু মা নেই এই আফসোস কবিতার নিবিড় আলিঙ্গনেও ভুলে থাকা যায়না কখনোই।আমার কাছে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ উপহার মা,তারপর কবিতা।তারপর বাবা ভাই মামা কাকা,খালা।মা নেই বলে কোনো ইচ্ছে নেই স্বপ্ন নেই।শুধু লিখি আর লিখি এই ওই।মহাকালের জন্য লিখছি,মানুষ ও মানবতার জন্য লিখছি।মাকে ডেডিকেট করে লিখছি।মাও হয়তো পড়ছে মহাকালের গর্ভে ঘুমিয়ে।
আমিকি কোনো অপরাধ করছি!তা কেনই বা হবে!তারপরও অনেকে আমায় ঘৃনা করে।কেনো যে করে জানিনা।সত্য কথা বলি স্ট্রেইট এ জন্যই হয়তো।তাল মিলিয়ে চলতে পারিনা এটাও একটা কারণ। আমার হৃদয়ের কবিতাকে শব্দ ছুঁয়ে ভালোবাসি বলেনা অনেকেই।হায় কবিতা!আমার চেয়ে তোরই বেশি আফসোস।আমি মরে গেলে তোর কি হবেরে_আমার জীবন বোধগুলোকে ধরে রাখতে পারবি তো!আমি এক কাব্যিক বিভোর মেঘাচ্ছন্ন আকাশ,আমি নির্জন ছায়ার বেষ্টনীতে আবদ্ধ কল্প বোধ,অস্বাভাবিক অন্ধকারে জ্বলছি,কাব্যই আমায় জ্বালায়,দুভাবে জ্বলি,কখনো আলো হয়ে কখনো বেদনার দহনে।
#(মাসুদ চয়ন)

৫৫জন ১৩জন
5 Shares

৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য