ইউক্যালিপ্টাসীয় সত্তা

ইকরাম মাহমুদ ৮ মার্চ ২০১৭, বুধবার, ০৩:১৭:৪৬অপরাহ্ন কবিতা, বিবিধ ২২ মন্তব্য

দূরের ইউক্যালিপ্টাস গাছটায়..
শীতের আগেও পাতা ছিল।
শীতেও পাতা দেখেছি।
ফুল ধরতো কিনা জানিনা।
দৃষ্টি পৌঁছাতো না অতদূর।
মাঝেমাঝে জানালার এ পাশটায় দাঁড়িয়ে
খুঁজি দূরের সৌন্দর্য।
দূরে যেখানে আকাশ ঠেকেছে সেখানটাতে
অথবা ইউক্যালিপ্টাসে।
সাদা মূর্তিমান দেহ, চুনের মতো সাদা।
পাতাগুলো যেন কেশর।
পাখিদের বসতে দেখিনি কখনো গাছটাতে।
হয়তো বসেছে !
হয়তো চোখেই পড়েনি !

শীত ফুরিয়ে বসন্ত..
গাছটাতে পাতা নেই একটিও।
কেশরহীন সিংহ দেখতে যেমনটা লাগে !
তেমনই লাগছে।
হঠাৎ এমন বিশ্রী হয়ে গেল কেন?
ইউক্যালিপ্টাস কি পত্রঝরা উদ্ভিদ?
যেখানে প্রতিবেশী গাছগুলো ছন্দে-আনন্দে
দুলছে মৃদু বাতাসে।
সেখানে সব হারিয়ে ঠায় দাঁড়িয়ে ইউক্যালিপ্টাসটা।
নড়াচড়া তো দূরের কথা-
নিঃশ্বাস নিতেও মনে হয় ভয় পায়।
ওর ভিতরও বোধকরি একটা দুটো
বিশ্বাসের পাতা
গজিয়েছে এতোদিনে।
জীর্ণ-শীর্ণ দেহে দাঁড়িয়ে আছি এই তো অনেক!

একদিন এক ভোরে দূরে তাকাতেই
হঠাৎ চোখ আটকালো ইউক্যালিপ্টাসে
চশমাটা রাখা ছিল বালিশের কাছেই।
তরিঘরি করে চোখে লাগিয়ে নিলাম
একি, ইউক্যালিপ্টাসে কেশর !
ঠিক দেখছি তো!
এই দুদিন আগেও তো!
মৃদু বাতাসে আমার ভিতরটা দুলে উঠলো যেন!
যেন আমার ভিতর থেকে ধীরপায়ে
বেড়ে উঠছে কচিপাতারা!
যেন আমিই ধারণ করছি নতুন এক সত্তা।
যেন আমিই ঐ ইউক্যালিপ্টাসটা।

১৫৭জন ১৫৭জন
0 Shares

২২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য