আমার মনে হয় এই দুই নেত্রী কেও দেশ প্রেমিক নয়। মুখে দেশের প্রেমের নাম অন্তরে ক্ষমতার লোভ। এদের চেয়ে বড় মুনাফিক এর কেও নাই।
একজন ভোট এলে হয়ে যান ধর্ম ব্যবসায়ী। আর অন্যজন হয়ে যান রক্ত পায়ী ভেম্পেয়ার। আর এদের কাজকে জায়েজ করতে অনলাইনে কিছু অষ্টিক শিশু এমন সব স্ট্যাটাস প্রসব করছে যে এদের জুতাতে ইচ্ছে হয়।
হাসিনা তাঁর একগুঁয়ে মনোভাব ত্যাগ না করে আমাদের দিয়েছেন বিপদে ফেলে, আর আমরা মরছি খালেদার হিংস্রতায়।
দুজনেই সাধারণ জনগণের রক্তে হুলি খেলছে। দয়া করে এবার বন্ধ করুণ।আপনাদের গদি নিয়ে কাড়া কাড়ির ফল আমরা সাধারণ জনগণ কেন ভোগ করব।
আর কত দুঃখ কষ্ট দেখলে আপনাদের মন নরম হবে। দিন শেষে আপনারা কি সংবাদ দেখেন না। দেখেন না একটা মানুষের আগুনে ঝলসানো কাতরানি। মৃত আত্মিয়ের বা বাবার লাশ ধরে অবুজ শিশুর কান্না। একটু কি মনে আঘাত করে না আপনাদের।
কেন আপনাদের মনে পড়ে না, ৭৫ এ আপনার পরিবারের হত্যা, আর আপনার স্বামীর হত্যার দৃশ্য।
দেশের সম্পদ পুড়িয়ে নষ্ট করে আন্দোলনের নামে মানুষের কষ্টের কথা কি একটু মনে দাগ কাটে না গো খালেদা মাদাম।
আর আলচনায় না বসে আপনার একগুঁয়েমির জন্য জনগণের কষ্টের কথা কি একটু চিন্তা করবেন না হাসিনা মাদাম। এই তো দু দিন আগে ওমরা করে এলেন, হজের শিক্ষাটা কি একটু কাজে লাগানো যায়না আমাদের দেশের সাধারণ মানুষের জন্য।

আপনাদের খালি ক্ষমতার লোভ। দেশকে জনগণ কে আপনারা কেও ভাল বাসেন না। ভালবাসলে একটু নমুনা দেখান।

আর যে সব কুত্তারা দেশের সম্পদ নষ্ট করছে তারা কেও দেশকে ভাল বাসে না। আশ্চর্য হয়ে যায় কেমনে তারা ট্রেনে আগুন দেয়?

আমার ক্ষমতা থাকলে আপনাদের দুই নেত্রীকে সবার সামনে জুতা পেটা করে প্রশ্ন করতাম, এই হানা হানির মানে কি।
সেই ক্ষমতা নাই তাই আজ ঘোষণা দিলাম আপনাদের নৌকা ও ধানের শীষ প্রতিকে হিসু করে দিলুম।
আর প্রত্যেক বিবেকবান দেশপ্রেমিক জনগণকে আহব্বান করি এই দুই প্রতিকে হিসু করার জন্য।

১৩৯জন ১৩৯জন
0 Shares

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ