সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

আল কুরআনের আলো- (পর্ব -২)

আতা স্বপন ২৬ এপ্রিল ২০২০, রবিবার, ০৬:১৬:৩৬অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২ মন্তব্য

পবিত্র কুরআন সম্পর্কিত কিছু তথ্য:

পবিত্র কোরআনে ১১৪টি সুরা রয়েছে যা ১৯ দ্বারা বিভাজ্য। পবিত্র কুরআনে বিসমিল্লাহীর রহমানির রাহীম আয়াতটি ১১৩টি  সুরায় আছে ১টি সুরায় নেই।যার নাম সুরা তওবা। আরেকটি সুরায় দুইবার থাকায় ১১৪ বার। এই সংখ্যাটি ও ১৯ দ্বারা বিভাজ্য। আল্লাহ শব্দটি আছে ২৬৯৮  বার যা ১৯ দ্বারা বিভাজ্য।

কুরানুল কারিম এর কিছু সুরা শুরুতে কিছু রহস্যময় অক্ষর ব্যবহার করা হয়েছে। যেমন : আলিম লাম মিম। এমন ১৪ টি বর্ণে  গঠিত এই শব্দগুলো। আবার এর শব্দ সেটও ১৪টি-

১. আলিফ লাম মিম  ২. তোয়া সিন   ৩. আলিফ লাম রা  ৪. হা মিম    ৫. ইয়া সিন

৬. তোয়া হা    ৭. সোয়াদ       ৮.  নুন     ৯. কাফ       ১০. আলিফ লাম মিম ছোয়াদ  ১১. আইন সিন কাফ   ১২. তোয়া সিন মিম  ১৩. কফ হা ইয়া আইন ছোয়াদ    ১৪. আলিফ লাম মিম  রা। ২৯টি সুরার শুরুতে এই ১৪টি সেট রয়েছে। যাদের (১৪+১৪+১৯)= ৫৭ । এটি ১৯ দ্বারা বিভাজ্য।

প্রথম ওহি ইকরা পড়। এটি রয়েছে সুরা আলাক এ যার আয়াত সংখ্যা ১৯ এবং সুরা নাস থেকে উল্টো করে গননা করলে এটি  পবিত্র কুরআনের ১৯ নং সুরা। এভাবে পবিত্র কোরআনে ১৯ এর একটি রহস্যময়তা আছে। গানিতিক সংখ্যা ১৯। ২টি সংখ্যা মিলনে এই একটি সংখ্যা গঠিত। এর শুরুতে ১ এবং শেষে ৯ রয়েছে। এ দুটো সংখ্যাই বেজোর। মহান স্রষ্টা ১ এবং বেজোর। পবিত্র কোরআন শরীফের সুরা মুদাস্সিরের  ৩০ ও ৩১ নং  আয়াতে এই ১৯শের বিষয়ে আলোকপাত করা হয়েছে এভাবে  –

(৩০) “ এর তত্ত্বাবধানে আছে ১৯ জন  প্রহরী ”

(৩১) আর আমরা তো জাহান্নামের প্রহরী কেবল ফেরেশতাদেরকেই করেছি ; কাফিরদের পরীক্ষাস্বরূপই আমরা তাদের এ সংখ্যা উল্লেখ করেছি যাতে কিতাবপ্রাপ্তদের দৃঢ় প্রত্যয় জন্মে, আর যারা ঈমান এনেছে তাদের ঈমান বেড়ে যায়। আর কিতাবপ্রাপ্তারা ও মুমিনরা সন্দেহ পোষণ না করে। আর যেন এর ফলে যাদের অন্তরে ব্যাধি আছে তারা ও কাফিররা বলে, আল্লাহ্‌ এ (সংখ্যার) উপমা (উল্লেখ করা) দ্বারা কি ইচ্ছা করেছেন? এভাবে আল্লাহ যাকে ইচ্ছে পথভ্রষ্ট করেন এবং যাকে ইচ্ছে হেদায়াত করেন। আর আপনার রবের বাহিনী সম্পর্কে তিনি ছাড়া কেউ জানে না। আর জাহান্নামের এ বর্ণনা তো মানুষের জন্য এক উপদেশ মাত্ৰ।

উনিশের একটা জাল আছে এ পুরো কুরআনে। পবিত্র কুরআন এর একটু অসংগতি হলেই এই জাল থাকবে না। ভাবার বিষয়  ১৪০০ বছর আগে একজন উম্মি নবী কি করে এমন সংখ্যাতত্ত্ব সম্বলিত একটি কিতাব রচনা করতে পারেন? একজন মানুষ এর পক্ষে এত সিস্টেম মেনটেইনকরে একটি কিতাব রচনা সত্যিই অসম্ভব । তাই  পবিত্র কুরানুল করিম যে আল্লাহর কিতাব কোন মানুষের রচিত নয় তা বলার অপেক্ষা রাখেনা।


সুরা বাকারাহঃ

পাড়া: ১ -৩

রুকু: ২৪০ টি

আয়াত: ২৮৬টি

মাদানী সুরা

নামকরণঃ

বাকারাহ অর্থ গাভী। এ সূরার ৬৭ থেকে ৭৩ নং আয়াত পর্যন্ত হযরত মুসা এর সময়কার বনি ইসরাইল এর গাভী কুরবানীর ঘটনা উল্লেখ আছে।ঐ ঘটনার সূত্র ধরে  এই নামকরণ করা হয়েছে।

নাযিলের প্রেক্ষাপটঃ

হিজরতে পূর্বে দাওয়াত দেয়া হয়েছিল মক্কার মুশরেকদের। হিজরতে পর মদীনায় ইহুদীদের অর্থাৎ বনী ঈসরাইল মান মুসা আ. অনুসারীদের দাওয়াত দেয়া হয়। ইহুদীরা মুসা আ. এর আনিত বিধান ভুলে তাতে তাদের মনগড়া বিধিবিধান মিশ্রিত করে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করে আসছিল। ভোগবিলাসে মত্ত হয়ে নিজেদের মুল ইতিহাস ভুলে গিয়েছিল।‘ইহুদি’ নামের মধ্যেই তারা নিজেদেরকে বাঁচিয়ে রেখেছিল। আল্লাহর দীনকে তারা কেবল ইসরাঈল বংশজাতদের পিতৃসূত্রে প্রাপ্ত উত্তরাধিকারে পরিণত করেছিল। কাজেই নবী সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম মদীনায় পৌছার পর ইহুদিদেরকে আসল দীনের দিকে আহবান করার জন্য আল্লাহ তাকে নির্দেশ দিলেন। সূরা বাকারার ১৫ ও ১৬ রুকূ’ এ দাওয়াত সন্বলিত। এ দু’রুকূ’তে যেভাবে ইহুদিদের ইতিহাস এবং তাদের নৈতিক ও ধর্মীয় অবস্থার সমালোচনা করা হয়েছে এবং যেভাবে তাদের বিকৃত ধর্ম ও নৈতিকতার উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্যের মোকাবিলায় যথার্থ দীনের মূলনীতিগুলো পাশাপাশি উপস্থাপন করা হয়েছে, তাতে আনুষ্ঠানিক ধার্মিকতার মোকাবিলায় যথার্থ ধার্মিকতা কাকে বলে , সত্য ধর্মের মূলনীতিগুলো কি এবং আল্লাহর দৃষ্টিতে কোন্‌ কোন্‌ জিনিস যথার্থ গুরুত্বের অধিকারী তা দিবালোকের মতো সুস্পষ্ট হয়ে উঠেছে।


এ সুরার আলোচ্য বিষয়ঃ

  • রহস্যময় শব্দ আলীফ লাম মীম।
  • কুরআনুল কারিম সম্পর্কে আল্লাহর চ্যালেঞ্জ।
  • মুনাফিকের পরিচয়।
  • কাফেরদের পরিচয়।
  • মানব সৃষ্টির ইতিহাস।আদম আঃ ও শয়তানের কাহীনি
  • বনী ঈসরাইলের গাভী কুরবানীর ঘটনা।
  • কিসাসের বিধান
  • জিহাদের নির্দেশ
  • সিয়ামের বিধান
  • কুরআন নাযিলের কথা
  • বিপদ আপদে ধর্য ধারন আর আল্লাহকে স্মরন
  • শহীদের মর্যদা
  • হজ্জ এর বিধী বিধান
  • এ সুরায় আছে আয়াতুল কুরসি। যেখানে আল্লাহর পরিচয় রয়েছে।
  • হালাল হারাম খাদ্য বিষয়ে আলোচনা
  • হযরত ইব্রাহীম আঃ ও ইসমাইল আঃ এর দোয়া
  • কিবলা পরিবর্তন
  • ইহুদী ও নাসরাদের মধ্যে দন্দ্ব
  • দিনরাত পরিবর্তনে আল্লাহর নিদর্শন
  • স্বামী স্ত্রীর সম্পর্ক
  • তালক এর বিধি বিধান
  • তাগুত ও জালুতে কাহীনি
  • দাউদ আঃ এ ক্ষমতা লাভ
  • আল্লাহ বান্দা কাছের উত্তম ঋন চেয়েছেন
  • সুদকে সংক্রান্ত আলোচনা
  • লেন দেন লিখিত রাখার বিধান
  • জীবীত কে মৃত করার বিষয়ে আল্লাহর কাছে ইব্রাহীম আঃ জানতে চা্ওয়ার কাহীনি
  • সুরার শেষ দুটি আয়াতে রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ দোয়া

     

২৮৭জন ২২১জন
0 Shares

২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য