সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

  1. আসসালামুয়ালাইকুম।
  2. আমরা স্বাভাবিক হতে শুরু করেছি।এটা কোন অর্থে-উপায় নেই চলতে হবে তাই চলছি। এভাবেই আমাদের কতদিন চলতে হবে জানা নেই। প্রিয় মানুষদের মৃত্যুর খবরে, প্রিয় মানুষদের ছেড়ে এড়িয়ে বহুদিন চলতে হবে।
  3. করোনা ভাইরাস এর শুরুতে আমাদের বাসাবাড়িতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মানুষগুলো যাদের সহচর না বলে কাজের মানুষ বলি তাদের কাজে না আসার জন্য বললেও সেটা আসলে কতদিন।তারা ছাড়া যেহেতু আমাদের চলেনা তাই আমরা তাদের ফেরাতে শুরু করেছি।আমাদের চেয়ে তারাই বেশি কাজ করে। বাড়ির ছোট বাচচা থেকে বৃদ্ধরা সবাই আমরা তাদের উপর নির্ভরশীল।সকাল বেলার চা থেকে শুরু করে বাজার রান্না ঘরদোর পরিষ্কার সবই তারাই করে থাকে॥
  4. আমরা সেই মানুষটির খেয়াল করছিকিনা?সে কি খাচ্ছে বা তার কিকি খাওয়ানো দরকার,সেনিটাইজ কিনা,বাইরে গেলে মাস্ক ব্যবহাব করছে কিনা ইত্যাদি।শুধু নিজেরা নিজেদের সকল প্রটেকশন নিয়ে ভাবছি আমার প্রিপারেশন তো ভালো।
  5. হঠাৎ করে যে কেউ আমরা যে কোন ভাবেই আক্রান্তহলে অবাক কেমনে হইল?আসলেই আমরা যে কোন সময় যে কোন ভাবেই আক্রান্ত হতে পারি।তাই নিজেদের পাশাপাশি কাজের মানুষদেরও খেয়াল রাখতে হবে॥বাইরে থেকে এলে স্যানিটাইজ করাতে হবে ও মাস্ক পড়া শেখাতে হবে॥যেহেতু সামর্থ্যের ব্যাপার তাই তাদের গিফট হিসেবে দিয়ে ব্যাবহারের নিয়মও শিখিয়ে দিতে হবে॥এবং ভয়াবহতা বোঝাতে হবে। খাবারগুলো তাদেরও ভালো দিতে হবে।
  6. মজার ব্যাপার হলো খেটে খাওয়া মানুষের সব সিস্টেমই ভালো বলা যায় আল্লাহর রহমত। তাই কোন কারনে তারা জীবানু বহন করে ভালো থাকবেন আর আমরা চর্বিযুক্ত গাদলুগুদলুরা ফটাস।সো এটাও একটা প্রটেকশন।
  7. তাই আমাদের মেয়েদেরই এই দিকটায় ভালো নজর দিতে হবে। আল্লাহ আমাদের সবাইকে ভালো রাখুক।সবাই ভালো থাকবেন।আমিন।
৪২৪জন ৩৩৬জন
6 Shares

২২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য