আমি ও আমরা

কামরুল ইসলাম ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২২, বৃহস্পতিবার, ০১:৪২:৪৩অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২ মন্তব্য

 

 

জীবনের উপমা গুলো বিরল স্বাক্ষর রাখে । নিজে ভাল থাকতে ,  সন্তানদের মানুষ

করতে,  পরিজনদের ভাল রাখতে আমাদের প্রতি দিনের ছুটে চলা।

দিন শেষে গোধূলি বেলা আমরা বুঝতে পারি,  কতটা ভাল থেকেছি,  কতটা ভাল রেখেছি, আত্ননিবেদনে কতোটা রিটার্ন পেয়েছি ।  দিন শেষে আমরা কেউ কারো না,  এটাই প্রমাণ পেয়েছে বার বার । ভালবাসার মানুষটি ও সরে দাঁড়ায়,  পান থেকে চুন খসলে । বুকের পাঁজর ক্ষয় করে যাদের লালন করে বড় করি,  তারা ও দৃষ্টি ফেরায় অন্য কোন প্লাটফরমে ।  এতোটুকু কদর নেই, সময় নেই শিকড়ের দানে ।  একটা জীবন যাদেরকে ঘিরে উৎসর্গ করি, তাদের সাথেই দুরত্ব বাড়ে,  মনের,  পরিমাপের ।  যাদের দায়িত্ব নিয়ে যোবনের উন্মাদনায় উত্তাল সাগর পারি দেই, অবেলায় তাদেরর তাদের দায়িত্বহীনতায় আর অবহেলায়  দুস্থ জীবনে নেতিয়ে পড়ি ।  এই চরম বাস্তবতার মাঝেও চাই,  নিজ সন্তান যেন থাকে দুধে ভাতে ।  এই ত্যাগ কখনো জীবনের উপমা হয় না । বৃদ্ধের চোখের স্বপ্ন কেউ খুঁজে না,  মনের ভাষা কেউ বুঝে না ।  অনাদরে,  অবহেলায় পরিত্যাক্তা কক্ষ,  বা বৃদ্ধাশ্রম ই তাদের নিয়তি ।  মহসিন সাহেবের মতো সাহসী হলেই রাখতে পারে আত্মত্যাগের স্বাক্ষর ।   আমরা শিক্ষিত হই,  ডিগ্রী অর্জন করি,  বিনিময়ে হয় নৈতিক অবক্ষয় ।  চাকচিক্যের পৃথিবীতে  আমরা নিজেকে তৈরী করি, যোগ্য হয়ে উঠি,  মূলধারাকে বিসর্জন দিয়ে ।  নিজেকে সোসাইটিতে সফল ব্যক্তিত্ব হিসেবে গড়ে তুলতেই সামাজিক অবক্ষয়টা বর্ধিত করি । তাও প্রতিযোগিতা মূলক ।  এ যুদ্ধ ক্রমাগত ই বিরাজমান।  তাতে আমরা কতোটা মনুষ্যত্বহীন হয়ে পড়ছি, তার খতিয়ান হিসাব কেউ রাখিনা ।

পরিশেষে , সকল মানুষের বিবেক জাগ্রত হোক,  মূল ধারার চৈতিণ্যে ।

এই কামনা

১৩২জন ৭৭জন
0 Shares

২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য