আমি আমার মিত্র

ছন্দা দাম ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, শনিবার, ০৫:৩৪:৫১অপরাহ্ন কবিতা ৩২ মন্তব্য

বস্ত্র দিয়ে নারীকে বারে বারে তোমরাই আবৃত্ত করো,
আবার তোমরাই লুলুপ দৃষ্টিতে নারীকে খুলে যে ধরো!

সে যদি ছাপ মারা অসুর,
মারলে নাহয় ব্রহ্মাস্ত্র বা ফাঁসিতে.
দেখি প্রায়সই দেবরূপী অসুর মিলে যে পূণ্যভূমীর মাটিতে।।

দুর্যোধন না হয় অন্ধের পুএ,
ধর্মপুত্রেরাও হীন বলশালী হয়?
ধর্মগ্রন্থ হাতে বিধর্মী হলে তীর্থ স্থানও পতীতা পল্লী হয়।

নারীর সতীত্ব বিচারের সার্টিফিকেট
একই থাকে শুধু রূপ বদলায়..
বলির পশু একই নারীদেহই থাকে,পুরুষ বলীয়ান      অর্থ বা পেশিতে হয়।।

স্বামীর সোহাগ নারীর পরশ পাথর,ওটা হারালেই অসতী নারী….
নারীর গর্ভ সৃষ্টির আধার,
তাই এতো অভিনয় করে নারী রক্ষাকারী।।

প্রকৃতি মাতাও বিধাতা পুরুষের.
বুঝে গেছিলেন এই অভিপ্রায়,
তাইতো সর্ব শক্তি বিধাতার হাতে তবু ও
সৃষ্টির প্রাণ পাখি রাখলেন নিজের আওতায়।।

অগ্নিদগ্ধা হবে,বস্ত্র লুণ্ঠিতা হবে
তবুও বিধাতাকে বলবেনা মোরে রক্ষা করো….
সে যে আধুনিকা নারী হেরে যাবে না, নারীকেই বলবে তুমি অস্ত্র ধরো।।।

তোমরা দয়া করে বস্ত্র  দাও,আবার নির্দয় হয়ে লুট করো.???
আমার স্নেহ মায়ার গুণকে তোমরা অস্ত্র হিসেবেই ব্যবহার করো।।

ধীরে ধীরে বুঝলো যুগ যুগান্তরে
নারী নিজেই হলো একমাত্র নারীর  মিত্র,
পুরুষ কখনোই আপন হবে না ঈশ্বর,স্বামী বা পুত্র।।

 

২৩৩জন ৩৩জন
0 Shares

৩২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য