পূর্বের পর্ব- আমার হোস্টেল বেলা-২: আবোল তাবোল-৪ 

ফান লেখার একটা বড় ঝামেলা আছে আর সেটা হলো সব ফান সবার কাছে ফান নাও হতে পারে। আমি চেষ্টা করবো যাতে আমার ফান গুলো সবার জন্য “ফান”হয়। হোস্টেলে থাকা অবস্থায় যে সব ঘটনা ঘটছে সে গুলোই আমি লেখার চেষ্টা করছি।

ঘটনা  ৩ঃ
আমি নিচতলা থেকে একদম উপরের তলায় সিট চেঞ্জ করেছি অনেক দিন হলো। আমার তলায় এক বড় আপু আসছে। আমার মতে উনি একটু হুশে খাটো।
একবারের ঘটনা বলি। আমরা একটা জানালা দিয়ে ময়লা পানি বাহিরে ফেলি। উনি এসে বেশ জোরে ময়লা পানি থ্রো করলেন যার ফল স্বরুপ শুধু মগের হাতল টা উনার হাতে রয়ে গেছে, আর মগ সহ পানি বাহিরে চলে গেছে।একবার হাতলের দিকে তাকান তো একবার জানালার দিকে। আমাদের স্বাভাবিক মস্তিষ্ক বলবে মগ টা ফেটে গেছে। কিন্তু উনার মাথায় সেটা কাজ করেনি। মগ ভালো আছে বলে নিচে গেলেন মগ আনতে গিয়ে দেখেন সেটা ফেটে গেছে।

ঘটনা  ৪ঃ
হোস্টেলে বড় আপুরা হলো সবার গার্জিয়ান। কারর কিছু হলে তারা খোজ নেবেনই।
একবার এক ছোট মেয়ের এমন ডাইরিয়া হলো যে সে নিজের বেডের চেয়ে টয়লেটেই বেশি থাকে। বেড আর টয়লেটের মাঝে যে সময় পায় সেই সময় টা বেসিনের উপরে রাখা আয়না দেখে আর মন খারাপ করে। একবার সে আয়নায় নিজের নষ্ট
হয়ে যাওয়া চেহারা দেখছে এমন সময় সেই হুশে খাটো বড় আপু গিয়ে পিচ্চি মেয়ে কে জিজ্ঞেস করলো-
-তোমার কি হয়েছে
=এই তো আপু পেটের সমস্যা।
-আরে বোকা আমার কাছে ঔষুধ আছে নিয়ে যাও।
=আচ্ছা।
সেই ঔষুধ খাওয়ার পরের ঘটনা। পিচ্চির অবস্থা আরো খারপ হয়ে গেলো।

এখানে মোরাল অফ দ্যা স্টোরি হচ্ছে আপু পায়খানা না হওয়ার জায়গায় পায়খানা হওয়ার ঔষুধ দিয়ে দিছেন।

৩৫৩জন ৩৫৩জন
0 Shares

২৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ