আমার স্মৃতি-৭১

সৈয়দ আলী উল আমিন ৫ মে ২০১৭, শুক্রবার, ০৩:১৪:৪৫অপরাহ্ন মুক্তিযুদ্ধ ৯ মন্তব্য

এরপর ক্রমশ দেশের বিক্ষুব্ধতা এবং অসন্তোষ চট্টগ্রামে বসেই অনুভব করতে পারছিলাম । বিশেষ করে ছাত্রদের মধ্যে অবশ্য সাধারণ মানুষের মধ্যেও অসন্তোষ দানা বাঁধছিল এবং নির্বাচনেই প্রমাণ হয়েছিলো জনগণ পাকিস্তানকে প্রত্যাখ্যান করেছে এবং পশ্চিম পাকিস্তান এটা বুঝতে পেরেছিল । তাই তারা টালবাহানা করছিলো এবং আমি এবং আমার বন্ধু মহল কেন জানি উপলব্ধি করছিলাম ভূট্টো ও ইহাইয়া চক্রান্তের জ্বাল বুনছে এবং আইয়ুব খান কে তারাই প্রত্যাখ্যান করবে ।
কয়েক দিন পিছনে ফিরে যাই ৭ ই মার্চ থেকে ২১ এ ফেব্রুয়ারি । ১৯৭১ –এর ২১ ফেব্রুয়ারি উদযাপিত বিক্ষোভে । চট্টগ্রাম MUSLIM INISTITUTE এ আওয়ামী লীগ একটি আলোচনার সভার আয়োজন করে । সেখানে আমি ও ছিলাম । প্রধান অতিথি ছিলেন কবি সৈয়দ আলি আহসান এবং সভাপতি ছিলেন জনাব এম আর সিদ্দিক সাহেব । আমি যেহেতু রাজনৈতিক সচেতন ছিলাম আমার বাবাকে না বলেই আমার বন্ধু মহলকে সঙ্গে করে গিয়েছিলাম এবং খুব শান্ত একটু দূরে দূরে থেকে কিন্তু এটা একটি মিছিল ছিল যা আমরা বুঝতে দিইনি পশ্চিম পাকিস্তান সরকার কে । যাই হোক ফিরে আসি মার্চ মাসে । বঙ্গবন্ধুর ভাষণের পর ঢাকার আবহাওয়া উত্তপ্ত হল এবং চট্টগ্রামেও । সবাই রাজনৈতিক সমস্যা নিয়ে ভাবছিল । আমার মনে হয়েছিলো সকলেই সমাধান খুঁজছিল , সঙ্কল্প গ্রহণ করছিলো । আবার সংঘর্ষের সম্ভাবনা ও দেখছিলাম । কিন্তু সংঘর্ষের রূপ কি রকম হবে তা অনুমান করতে পারছিলাম না । শুরু হল অসহযোগ আন্দোলন আর হরতাল এবং স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে জনতা সাড়া দিলো ।৭ ই মার্চ ভাষণে বঙ্গবন্ধু অবশ্য আগাম ইঙ্গিত দিয়ে ছিলেন ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তুলো ।

৪০০জন ৪০০জন
0 Shares

৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ