আমার শহরে কাশবন নেই

তৌহিদ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ১২:২৩:০০পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩৩ মন্তব্য

আমার শহরে কাশবন নেই।
সংকীর্ণতায় অন্ধ অমরত্বতার বিস্বাদ গায়ে মেখে
অনুভবে আজ আমি ঘরেও নেই পাড়েও নেই;
আছি এ দু’য়ের মাঝখানে।
সন্ধ্যাবেলায় নিশুতিডাকের বিদীর্ণ আহাজারিকে
শৃঙ্খলবন্দী করে বেঁচে থাকবো নতুনরুপে,
এই ধরাধামে যতদিন আছে নিঃশ্বাসে প্রাণ করেছি পণ;
হাঁটবো নতুন পুজ্যপথে,কাশফুলের সাথে।

এই শহরে চেনামুখগুলি আর চেনা নেই।
আঁধারের অস্পৃশ্যতায় বন্দী হয়েছে মর্তের স্নেহপ্রেম;
অন্ধ অনুরাগে জলকেলিতে মত্ত নৃস্বর্গের দেবীরা।
অপার্থিব অতিপ্রাকৃত আলোকজ্জ্বল মধুমায়ায়
অথবা যুগলবন্দী কায়ার ছিন্নবিচ্ছিন্নতার দ্বন্দ্বে-
নবমন্ত্রে দীক্ষিত হয়েছি আজ।
তোমার বাহুডোরের লোভকাতুরতায়,
ছিঁড়েছি জাগতিক সব বন্ধন শিখা।

কাশফুলের শুভ্রতার অবগাহনসুরে
বিশ্বপ্রকৃতির চেতন-অচেতনতায় অনন্ত সৌন্দর্য মাঝে,
একা একা স্বশরীরে সুন্দরবেশে হেঁটেছি সে মেঠোপথে।
আমি নরকগুলজার প্রাপ্তিযোগ্য বন্দিতো নই?
তাই মানবযক্ষের বিরহ-ব্যথাকে পায়ে ঠেলেছি-
রাগিণীর মূর্ছনায়, মেঘদূতের আহবানে।

অন্তর্ভেদী বেদনায় মোহাচ্ছন্নতার প্রেমপূজারী আমি।
তোমাকে না পাওয়ার কান্না আকাঙ্ক্ষার নিরবিচ্ছিন্নতায়;
সংসার স্রোতের বন্যায় ভেসে চলেছি হাস্য-পরিহাসে।
দুঃখ-শোকের আবর্ত বার্তায় উদ্বেলিত
কিংবা অতৃপ্তির চিত্ত-অধীরতাকে পাশকাটিয়ে;
চলো যাই তোমার শহরের কাশবনে।
হবো দু’জনে মুখোমুখি, প্রেমমত্ত্বতায় মাখামাখি;
ঘন নিভৃতে শুধু তুমি আর আমি।

২১৪জন ৮জন
46 Shares

৩৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য