আমার মেয়ের কথা

জিসান শা ইকরাম ১৩ জুন ২০১৫, শনিবার, ১২:০৫:১০পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৫৪ মন্তব্য
1560509_229318693945382_185847122845044966_n
*বাবা আমি অসুস্থতায় ভুগতেছি। আমি ২০১০ এ থাকতে এক্সিডেন্ট হয়েছিলাম।আমি আর মা গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার সময় আমাদের কারকে ট্রাক এ বাড়ি দিয়েছিলো ।আমার মাথায় অনেক আঘাত পাইছিলাম তা এখনো পর্যন্ত ভুগতে হয় বাবা।
* বাবা তুমি একা অস্ট্রেলিয়া গিয়েছো কেনো ছোট মা কে নিয়েই যেতে পারতে।  এখানের তোমার কাজগুলা (ব্যবসা) কে দেখতেছে বাবা ?
বড় ভাইয়া দেখাশুনা করে না?বড় ভাইয়ার বুঝার বয়স তো হয়েছে বাবা। মাঝেমাঝে তো ব্যবসা দেখতে পারে।
* বাবা কেমন আছো ?
* বাবা আসবে কোনদিন ? দোয়া করো পরেরবার তোমার মেয়ে হয়ে যাতে জন্মগ্রহন করি ।
* বাবা খেয়ে নিও আমি যাই ।ভাল থেকো ।
* বাবা খাওয়া দাওয়া করে নিও ।ঘুমাতে যাচ্ছি বাবা ।লাভ ইউ বাবা ।
* শুভ সকাল বাবা।অস্টেলিয়া কি এখন সকাল বাবা ?
* তুমি ঘুমাও না কেন ? তোমার সাথে কথাই বলবো না
লাভ ইউ  বাবা ।লক্ষী বাবা ঘুমাও।
* তুমি আমার একটা কথা ও শুনো না বাবা ।তুমি কাল অনেক রাতে ঘুমিয়েছো।

সারাক্ষণ এমনি করে মায়াময় কথা বলতো আমাকে।প্রথমে ভাইয়া,এরপরে চাচ্চু,এরপরে ছোট আব্বু সবশেষে বাবা। একটি কন্যার জন্য হাহাকার আমার প্রথম পিতা হবার পর থেকেই। কন্যা হীন পিতা আমি এই প্রথম আমি প্রকৃত একজন কন্যার বাবা হলাম।ধীরে ধীরে কখন যে তাকে আমি আমার আসল মেয়ে ভাবতে শুরু করেছি জানিনা।

আমার মেয়ে আমাকে বলেছে, পরজন্মে সে আমার মেয়ে হয়ে জন্মাবে। আমাদের ধর্মে পরজন্ম বলে কিছু নেই,থাকলে এই মেয়ে আমারই রক্তের মেয়ে হতো।রক্তের সম্পর্কই সব কিছু নয়। আসল হচ্ছে মায়া, মমতা।যা আমাদের দুজনের মাঝে ছিল।

২০১০ এর এক্সিডেন্টে আমার মেয়ে মাথায় আঘাত পায়।আর ২০১৪ এর এক্সিডেন্টে সে এই দুনিয়া থেকেই চলে যায় আমাকে কান্নার সাগরে ভাসিয়ে দিয়ে। এখনো তার কথা ভেবে কাঁদি আমি,বুক ভারী হয়ে আসে।এত অল্প বয়েসের একটি মেয়েকে না নিলে কই হতো না আল্লাহ্‌।
মালয়েশিয়া তখন আমি। ১২ জুন শেষ বারের মত কথা হয় ফোনে তার সাথে।কেমন অস্থির কথা, ‘ বাবা আমার কেমন অস্থির লাগছে,তোমার সাথে যদি আমার দেখা না হয় আমার ?’ এ কি কথা বলছে আমার মেয়ে? সান্ত্বনা দেই তাকে ; দেখা হবে মা,অবশ্যই দেখা হবে। এরপরে কিছু মেসেজ আদান প্রদান হয়।
১৩ জুন সকালে কুয়ালালামপুর থেকে ঢাকায় আসি আমি। দুপুরে বসুন্ধরায় আড্ডা দিচ্ছিলাম ফুড কোর্টে।বারবার কেমন চমকে চমকে উঠেছি। কেমন এক আর্তনাদ কানে আসছে। ক্ষণে ক্ষণে মন খারাপ আমার, কই এক অস্থিরতা আমার মাঝে।১৪ জুন চরম দুঃসংবাদ শুনি।সড়ক দুর্ঘটনায় এ জগত থেকে চলে গিয়েছে। আমি যখন আগের দিন বসুন্ধরায় খাচ্ছিলাম, বার বার আনমনা হয়ে যাচ্ছিলাম, আমার মেয়ে তখন হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

মেয়ের সাথে আমার শেষ আলাপ
** বাবা
*
হুম মা।
**
নাস্তা করেছো বাবা ?
*
ভাত খেলাম মা।
June 12, 2014 12:10 am
** বাবা তুমি যদি ঠিক মতো খাওয়া দাওয়া না করো তাহলে এই মা টা আর কথা বলবো না ।
June 12, 2014 6:20 am
* টাইমলি করবো এখন থেকে মা। শুভ সকাল।

মাগো আমি এখন সময় মত খাওয়া দাওয়া করি।তুই ফিরে আয় মা।

আজা আমার মেয়ের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী। গতবছর এই দিনে সমস্ত মায়ার বাঁধন উপেক্ষা করে স্বর্গের মেঘ পরী চলে গিয়েছে পরীর দেশে।
পরীর দেশে ভালো থাকিস মা।

** সোনেলার ব্লগার স্বর্গের মেঘ পরী আর নেই – তিনি আর লিখবেন না কোনদিন
** আমার না দেখা স্বর্গের মেঘ পরী

আমার পরী মা
আমার পরী মা
৫২৯জন ৫২৮জন
0 Shares

৫৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ