আমার বই সংগ্রহের ইতিহাস

জি.মাওলা ১৮ ডিসেম্বর ২০১৩, বুধবার, ১১:৪৭:৫০অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১০ মন্তব্য

‘’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’আমার বই সংগ্রহের  ইতিহাস ’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’’

আমি যেমন পড়তে ভাল বাসি তেমনি আমার সংগ্রহে রয়েছে প্রায় ৫০০০ বই এর বিশাল সংগ্রহ। তবে এই বিশাল সংগ্রহের বেশির ভাগ হল পুরাতন বই। এবার বলি এই বই সংগ্রহের পিছনের কাহিনী।

আমি তখন রাজশাহী তে থাকি, আপনারা কাগজের দোকান চিনেন নিশ্চয়, হা যেখানে পুরাতন বই পত্রিকা খাতা ইত্যাদি ক্রয় বিক্রয় হয়। রাজশাহীতে এই দোকান গুলি যেখানে সেখানে পাবেন। তবে সাহেব বাজার বড় মসজিদের পশ্চিম দিকে এবং আড্ডি  মার্কেটের দক্ষিণ দিকে এই দোকান গুলি হতে আমি প্রচুর বই নাম মাত্র মূল্যে পেয়েছি। এই দোকান গুলি হতে আমি এমন এমন সব বই পেয়েছি যে কি বলব। আমি বই গুলি কিনতাম ৫-২০ টাকা দিয়ে, যেগুলি পুরাতন বই মার্কেটে কিনতে গেলেও ৫০-৮০ টাকা দিতে হয়।

এর পর আমার বই সংগ্রহের প্রধান মাধ্যম হল রাজশাহীর পুরাতন বই মার্কেট। এখানে আমি প্রচুর প্রচুর বই কিনেছি। দেখা যাচ্ছে নতুন যে কোন বই যে কেউ একবার দুইবার পড়ে পুরাতন মার্কেটে বিক্রয় করেছেন। বই টি একেবারে ঝক ঝক আছে। এই বই গুলি খুব কম দামে কিনতাম। কারণ কয়েক টা দোকান দার কে বলা থাকতো এই রকম বই এলে যেন আমার জন্য রাখে।

এর পর নতুন মার্কেটে বই কিনা । প্রতি মাসে ৫০০-৬০০ টাকা বাজেট থাকতো নতুন বই কিনার জন্য।

####কি ভাবছেন এত টাকা পেতাম কই ?

ক্লাস ৬-১০ পর্যন্ত টিফিনের টাকা, স্কুল বেতন, মার লুকিয়ে দেওয়া, বাজারের টাকা মেরে জা পেতাম এই দিয়ে বই কিনা চলত। ১১-১২ ক্লাসে একটু বেশি হাত খরচ পেতাম, আর এদিক সেদিক করে বেশ চলত বই কিনা আর বই পড়া। অনার্স ১-২ ইয়ারে টুকটাক পয়সা পেতাম প্রাইভেট পড়িয়ে। এই করে বই কিনা আর পড়া বেশ চলেছে।

আমার বই কিনার নেশা এবং প্রচুর আর্থিক সমাগম ঘটে ৩য়- ৪থ  বর্ষে। আমি এই সময় প্রাইভেট হতে প্রতি মাসে ৬-১০ হাজার টাকা পেতাম। আর বাড়ী হতে পেতাম ৩-৪ হাজার টাকা। আর একটি বই এর দোকানে পার টাইম (সকাল ৯- দুপুর  ১) বসতাম ওখান হতে পেতাম ১৫০০ টাকা। তো রমরমা অবস্থা আমার। তো ইচ্ছে মত বই কিনতাম তখন।

 

 

 

২৫২জন ২৫২জন
0 Shares

১০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ