সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

 

তুমি আমার খবর নিও।

যদি পারো প্রতিদিন চিঠি দিও।

আমার কথা কী কখনো পড়ে মনে।

হাওয়ায় যখন ঝুমকা দোলে তোমার কানে।

হয়তবা এতোদিনে তুমি অনেককিছুই গিয়েছ ভুলে

তোমার প্রেমে পড়েছিল একটা ছেলে।

কত না মধুর ছিল বর্ণীল আবেগ আনন্দ উচ্ছ্বাস।

হাতে হাত রেখে লং-ড্রাইভে হারিয়ে যেত সকল দীর্ঘশ্বাস।

প্রতিদিন সকালে এসে তুমি দাঁড়াতে।

লাল টকটকে বা সাদা গোলাপ হাতে।

মুখে হাসি নিয়ে জানাতে অভ্যর্থনা।

সে স্মৃতিগুলো যে আমার জীবনের সেরা পাওনা।

শপিং মলে গুরেছি আমরা হাত ধরাধরি করে।

তোমার সেই আনন্দ উল্লাস আজও আমাকে আপ্লুত করে।

নেভালে যখন কাটাতাম তখন বয়ে যেত ভালবাসার ফল্গুধারা।

আলাপে চুমুতে দুইজনে হয়ে যেতাম আনন্দে আত্মহারা।

দুইহাতে যখন তোমায় রাখতাম বুকে জড়িয়ে।

বলেছিলে তুমি রয়েছ সবচেয়ে নিরাপদ আশ্রয়ে।

পরস্পরের মাঝে ছিলনা কোনো ব্যবধান।

সুখের ডানায় ভর করে পেতাম আদিম সুখের সন্ধান।

তুমি করেছ কত কত আবদার।

ঝুমকা জামদানী শড়ি আংটি অনামিকার।

এসব পেয়ে তোমার সেকি আনন্দ আর উচ্ছ্বাস।

আমি দেখতাম ছোট্ট শিশুর সরল মনের প্রকাশ।

অকস্মাৎ একদিন এলো এক যুবক তোমার জীবনে।

চেনাজানা প্রিয় মানুষটা তোমার জীবন থেকে পাঠিয়ে দিলে নির্বাসনে।

হাতে সময় হলে তবে খবর নিও।

ইচ্ছে হলে চিঠি দিও।  চিঠি দিও।

১১০জন ৪৯জন
0 Shares

১৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য