আমার কবিতারা

নীরা সাদীয়া ২৬ মার্চ ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১২:২১:৩১অপরাহ্ন কবিতা ২০ মন্তব্য

 

 

করোনায় বাংলাদেশ

করোনায় মারা গেলো ঐ বাড়ির চাচা
চলো সবে দেখে আসি মিছা নাকি হাচা?
বিদেশ থেকে ফিরেছে জমিরুল কাল
খোঁজ নিয়ে জেনে আসি তার হালচাল।
শুনেছি মর্জিনার মা আছে বদ্ধ ঘরে,
মর্জিনা দিনরাত কি না কি করে!
খোঁজ খবর নিতে হলে যেতে হবে আজি
আর তো কেউ নেই, আমি শুধু আছি।
পিকনিক পিকনিক ইস্কুল ছুটি
দলে দলে এসো সবে করি লুটোপুটি।
তেল,ডিম,রসুন,পেঁয়াজ আরো আছে আদা
যত খুশি দাম রাখো, কে দেবে বাধা?
চাল কিনো বস্তায়, ডিম হালি হালি
সবকিছু কিনে এনে বাজার করো খালি।
তিন ফুট দূরে থাকো বলে যেই দাদা
সম্মেলন করে পিছে লোক একগাদা।
ডাক্তার সেবা দিবে,নেই তার মাস্ক
রোগীতে গিজ গিজ, করবে কাকে আস্ক?
দিনরাত লকডাউন, কে আছে বাইরে
এটা জানা জরুরী, চলো সবে যাইরে।
করোনা ফরোনা আমাদের ধরে না,
আমরা বিশ্বাসী, আস্তিক মরে না।
গরীবের যাই হোক, আমি বেঁচে রবো,
করোনা শেষ হলে আবার ভাষণ দেবো।

২৪/০৩/২০

একটি রূপকথা

একদিন একা বসে ছিলেম নদীর ধারে,
হঠাৎ উড়ে এলো কিছু রঙবেরঙা পাখি।
কারো গায়ে নীল পালক তো কারো গায়ে হলুদ,
তারা এসে জমায়েত হলো ঠিক আমার ধারে।
যেন আমাকেই এসে বলছে, “যাবে?”
আমি বললেম, “কোথায়?”
“আকাশে”
“আকাশে?”
“হুম, আকাশে।
বিশাল নীলরঙা এক চাদর তলে সাতরঙা রামধনু,
রূপোর কৌটায় রূপোলী জোছনা,
ঝাঁক বেঁধে আমাদের দলে দলে উড়ে যাওয়া,
নরম মেঘের ভেলায় বিশ্ব ভ্রমণ,
চাঁদের হাসি, হিম শীতল আলো
আর…
এই ব্রাহ্মান্ডের যাবতীয় সুখ,
সব সব তোমার হবে, যাবে?”
“যাবো।”
পাখির ডানায় ভর করে উড়ে গেলাম আকাশে…
গিয়ে দেখি খটখটে রোদ, বিশাল নীলাকাশ
পানির তেষ্টায় প্রাণ যায় যায়!
কোথায় সেই নাম না জানা নানা রঙের পাখিরা?
কোথায় মেঘের ভেলা, চাঁদের শীতল পরশ?
এখানে কোন অভিকর্ষও আমাকে টানে না।
একা আমি ছটফট করে মরি!
“কেউ আছো? কোথাও কেউ আছো?
ফিরিয়ে দাও আমার সবুজ অরণ্য, মাটির শীতল পরশ।
চাই না এ চাঁদের আলো, চাই না মেঘের ভেলা।
কেউতো সারা দাও!”
কোথাও কেউ নেই।
আমার আওয়াজ কেবল বেজে বেজে আমার কানেই ফিরে আসে।
আমি শূন্য চোখে উদাস বদনে রইলাম বসে।
একদিন দুদিন কতদিন যায়…
মিছে মায়ার ঘোর কেটে রোজ ভোর হয়।
সূর্য মাথার ওপর উঁকি দিয়ে হাসে অট্ট হাসি!
আমি বেদনায় মরি ছটফটছটফট…
এমনি এক দিনে কোথা থেকে যেন উড়ে এলো
এক শাদা গাঙচিল।
আমাকে দেখে তার বড্ড মায়া হলো।
সে বললো, “যাবে?”
“না না যাবো না!”
কেঁদে ক্লেশে ভয়ে ভয়ে সরে এলাম দু’পা
সে হেসে বললো, “ভয় নেই।
আমার ডানায় চড়ো, নামিয়ে দেব মর্ত্যের পৃথিবীতে।
আমরা মর্ত্যবাসী, আমাদের জন্য
এ আকাশ নয়,
চাঁদ নয়,
রূপোর কৌটায় জোছনা নয়।
এগুলো রূপকথা।
আমাদের জন্য আছে নরম মাটি,
আছে সবুজ বনানী,
পাহাড়ি ঝর্ণা।
আমরা সেখানেই বাঁচি।।”

২৫/০৩/২০

১৭৭জন ৫৬জন
6 Shares

২০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য