সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

মহা প্রলয়ের মত তালেবানের এই উত্থানে চীন আর রাশিয়ার সমর্থন রয়েছে, রয়েছে পাকিস্তানেরও । বাংলাদেশ থেকে নাকি কিছু তালেবান যোদ্ধা আফগানিস্তানের উদ্দেশ্যে দেশ ত্যাগ করেছে। রাজধানী কাবুল ছাড়া সব বড় শহর তালেবানী যোদ্ধারা ইতিমধ্যেই কব্জা করে ফেলেছে। এবার তালেবান যোদ্ধাদের কাবুল ঘিরে ফেলার পর সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের আশরাফ ঘানি সরকারের কয়েকজন জ্যৈষ্ঠ তালেবান নেতাকে যুক্ত করে নতুন সরকার গঠনের প্রক্রিয়া চলছে।
এদিকে, এক বিবৃতিতে তালেবানের জ্যেষ্ঠ নেতারা তাদের যোদ্ধাদের শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। পৃথক বিবৃতিতে ব্যাংক, বীমাসহ অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান নিশানা (টার্গেট) করা হবে না বলে জানিয়েছে তালেবান।

ঢাকার পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলাম বলেছেন, তালেবানের সাথে যোগ দিতে বাংলাদেশ থেকে এরই মধ্যে কিছু মানুষ সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে যাবার পর সেখানে ধরা পড়েছে বলে পুলিশ ধারণা করছে। এখন আমাদের সব থেকে বড় ভয়ের হলো এই অবিবেচক তালেবানী তথা উগ্রপন্থি যোদ্ধারা যেহেতু বাংলাদেশেও রয়েছে তারা ভবিষ্যতে আমাদের জন্য কতোটা বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। ব্যপারটায় আমার মতো অনেকেই হয়তোবা শংকিত।

১৩৯জন ৩৯জন
0 Shares

১৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য