আনন্দলোকে

রেহানা বীথি ৫ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ০৯:২৫:১২অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২০ মন্তব্য

আমার পেছনে যে অসংখ্য রঙিন আলো, জ্বলছে নিভছে, ওগুলো আমি ফিরেও দেখিনি গত কয়েকদিন। মনের সমস্ত কপাট বন্ধ ছিল এই ক’দিন ।
কেন?
জানি না। মাঝে মাঝে কপাটগুলো বন্ধ হয়ে যায় আপনা থেকেই। অকারণেই ভাবনাগুলো উড়ে বেড়ায় কাছে, দূরে, এখানে, সেখানে। উড়েই বেড়ায়। স্থির হয়ে বসে না এক জায়গায়। অস্থির এই ভাবনায় কখনও চলে যাই অতীতের স্মৃতিবিজড়িত দিনগুলোতে, কখনও ঝিম মেরে বসে থাকি বর্তমানেই, কখনও আবার ভবিষ্যৎ নিয়ে উতলা হই।
কাজের কাজ কিছু হয় কী?
বোধহয় না। মনটা মুষড়ে থাকে। নিদারুণ এক দুঃখবোধ কুরে কুরে খায়। অথচ কেন দুঃখবোধ, তার কোনও হদিস পাই না। অদ্ভুত এক বিষাদ ভর করে থাকে দিনরাত।

আমাদের প্রত্যেকেই কোনও না কোনও সময় এই বোধের ভেতর দিয়ে যাই। এই অচেনা বিষাদ যে পুরোপুরি ব্যথিত করে আমাদের, তা নয়। অদ্ভুত হলেও সত্যি, এই বিষাদ কিছুটা হলেও আমাদের আকাঙ্ক্ষিত। হয়তো বোঝাতে পারি না, কিন্তু ওই বিষাদেও একরকম সুখ খুঁজে পাই। যেন ওই বিষাদ আমার নিজস্ব, আমার একান্ত আপন। যেন একটা ঘোর। দুঃখ -কষ্ট-হাসি-আনন্দের একটা মিশ্র অনুভূতি। এই ঘোরকালে আমি শুধু আমারই। হয়তো এ ঘোরের মধ্যেও ভাবছি সন্তানের পরীক্ষা নিয়ে, কিন্তু আমি আমাতেই আছি। আমাতেই থাকতে চাই। আলো কিংবা অন্ধকার, প্রভাব ফেলে না একটুও। হাতড়ে বেড়াই নিজের মনের অলিগলি।

এমন করে কোনও ফলাফল ছাড়াই একসময় কেটে যায় ঘোর, কেটে যায় বিষাদকালের অমীমাংসিত ভাবনাগুলো। ফিরে আসি চেনা কাব্যে, চেনা ভাবনায়, চেনা ছন্দে। মিশে যাই প্রতিদিনের যাপনে। আনন্দলোকে।

১০৫জন ৪জন
3 Shares

২০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য