আজ সোনেলা দিন

শুন্য শুন্যালয় ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫, বুধবার, ১২:০৮:০২অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৬৬ মন্তব্য
তিনটি বছর
তিনটি বছর

যখন নিঃশ্বাস ছোট হয়ে যেত বাদামি বর্নের প্যাকেটের মতো কিছুটা অক্সিজেন যেন খুঁজে ফেরা। অ তে অজগর, আ তে আম এর মতোই লেখার পান্ডিত্য নিয়ে এই সোনেলায় আসা। হাঁটতে গিয়ে হোঁচট খেলেও কখনো পড়ে যেতে দেয়নি প্রিয় হাতগুলো। কারো হাতেই ছিলোনা চিকন বেতের লাল চক্ষু, পেয়েছি পিঠে ধীর কন্ঠের প্রশস্ত হাত। এত প্রাণ, এত দামবিহীন অথচ মূল্যবান আমার এই প্রিয় সোনেলা আজ তিন বছর পূর্ণ করলো। কোন খামখেয়ালিপনার ফল কিংবা বাণিজ্যিক ভালোবাসার নয়, এ সোনেলার পিলারে রয়েছে অনেক কষ্ট মেশানো ভালোবাসারা। কে বলবে তা? নতুন কেউ এলেই চমকে ওঠে এ বাড়ির আঙ্গিনায়, এতো উচ্ছ্বাস, আতিথেয়তা যেন পরমাত্মীয় ছিলো কোন আগের যুগের। সোনেলা আমার, আমাদের। ভুলেই গেছি কোন দুই বুড়ো খোকা কাঁধে করে ঠায় দাড়িয়ে রয়েছে দুই স্তম্ভ হয়ে, আছে যে শত শত রঙ্গীন পাখিদের কোলাহল, ভরিয়ে রেখেছে আমাদেরই ঘর। ধন্যবাদ দেবোই না কাউকে, ভাষা তো জানা চাই।
***************
কি এক না বলা কথারা গোল চক্কর দেয়
খুব ক্লান্ত শ্রান্তিতে কি এক সুগন্ধি নিঃশ্বাস
ঘুড়ে বেড়ায় অযথাই
মান অভিমানে কিছু সময় ফেরি করে বেড়ায় ক্ষুদ্রতা
চলে যাওয়া মুখ, কথারা যাবার বেলায়
পিলারে লিখে যায় অ+ক
অনেক বলা কথাও অন্ধকার ঠাওরে ফিরে আসে ঠিক
আসবে আরো আরো নতুন করে গলে যাওয়া এন্টার্কটিকা পাহাড়
সব নিয়ে পাড়ি দেবে, দিনক্ষন না মাপা রোদে পোড়া সময়
আমারই সোনেলা।
****************
শুনেছো? মায়ারও হয় শাখা-প্রশাখা।
কখনো মূল ঐ সুন্দরী গাছের মত
যত্তসব ফালতু বলে কোমড় বেঁধে ঝগড়াটে আড়চোখও দেখে নেয়
শত্রুবাড়ির উঠান জুড়ে হয়েছে ফুলকপির নতুন সবুজের সবুজ
লোহার করাদে বেঁধে ফেলা ব্রীজ নয়
উন্মুখ হয়ে ছুটে আসে বঙ্গবন্ধু সেতূ, অপার নীল আকাশ নিয়ে,
বেঁধে এপাড়, ওপাড়।
এই যে, চললে কোথায়? শুনে যাও
লাল রঙ এক টিপটিপানো হৃদয় যন্ত্র ছাড়া চলবে কি কাফেলা?
কি করে ভাবছো তুমি ছাড়া হবে সোনেলা!!!

৪৯৪জন ৪৯২জন
0 Shares

৬৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ