সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

আজকের তিক্ত অভিজ্ঞতা

রেজিনা আহমেদ ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ১২:২৯:১৩অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩৭ মন্তব্য

 

মর্নিং ওয়াক করে আজ আর হেঁটে নয়, বাসেই ফিরছিলাম..বাসে উঠে সীটও পেলাম..ঠিক আমার অপরদিকে ডানহাত বরাবর তিনটে সীট জুড়ে বসে ছিলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন জামাকাপড় পরা ৬জন অফিসযাত্রী,, প্রত্যেকের বয়স আনুমানিক আটচল্লিশ থেকে বাহান্ন বছরের কাছাকাছি হবে।।

একজনের হাতে আনন্দবাজার পত্রিকা,, তিনি পড়তে পড়তে হঠাৎ বলে উঠলেন -” খবরের কাগজে ধর্ষণের নিউজ না থাকলে আমার ভাল্লাগে না”….পাশ থেকে অন্যজনের মন্তব্য -” পেপার হাতে নিয়ে আমিও আগে দেখি কোথায় কে কাকে কিভাবে ধর্ষণ করেছে”…. তৃতীয় আরেকজনের মন্তব্য -” হ্যাঁ ভাই যা বলেছো, পেপারে এসব না থাকলে খুব মিসিং লাগে বাল”…. কথাগুলো বলে তারা প্রত্যেকেই হাসাহাসি করছিল এবং তাদের চোখে মুখে একটা পৈচাশিক আনন্দ স্পষ্টই বোঝা যাচ্ছিল..

বাস ভর্তি লোক প্রত্যকেই নিজের মনে মনে এটার প্রতিবাদ করছিলো,, কিন্তু আমি মনে মনে করতে পারিনি,,ব্যাসস, এটাই আমার অপরাধ, আমি নাকি তাদের ব্যক্তিগত আলোচনায় ইন্টারফেয়ার করেছি,.. মানলাম ব্যক্তিত্বহীন মানুষদের ব্যক্তিগত আলোচনা, তাবলে এই বিষয়ে এরকম???? বাঁধলো আমার সাথে তুমুল ঝগড়া, এরপর গন্তব্যস্থল এসে পড়ায় ছেঁচড়াগুলো বাস থেকে নেমে যায়।।

কি আশ্চর্য তাইনা? দেখতে হুবহু মানুষের মতোই, কিন্তু আসলেই একেকটা মানুষরূপী জানোয়ার,, মানসিকতার কি অবস্থা ভাবতেও অবাক লাগছে..অবশ্য যে দেশের আইনশৃঙ্খলাই নড়বড়ে যেখানে এগুলো আশা করাই যায়.. আমার চোখে এরাও একেকজন ধর্ষক..

নিন্দার ভাষা হারিয়েছি

 

স্থান: কলকাতা

তারিখ: ০৬/১২/১৯

৬৭৩জন ২৪৩জন
7 Shares

৩৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ