অসহ্য কোলাহলের শব্দ

ইকু ৩১ মার্চ ২০১৪, সোমবার, ০১:২৪:২৯পূর্বাহ্ন গল্প ১০ মন্তব্য

ঘুম থেকে উঠেই তানভীর চোখ খুলে দেখে মাথার উপর ফ্যান টা অদ্ভুত ভাবে ঘুরছে। অদ্ভুত লাগার কারন হল, তানভীরের কেন জানি মনে হচ্ছে ফ্যানটা যেদিকে ঘুরার কথা তার ঠিক উল্টা দিকে ঘুরছে।
ধুর! তানভীর ভাবে ফ্যান উল্টা দিকে ঘুরুক আর ঠিক ভাবে ঘুরুক, তাতে আমার কি? গায়ে বাতাস লাগলেই হলো।
ইদানিং যেই ভ্যাপসা গরম পড়েছে, শরীর ঘামে চিট চিট করছে পুরাই। জানালা দিয়ে পাশের নর্দমা থেকে উৎকট একটা গন্ধও আসছে। গন্ধটা উপেক্ষা করে তানভীর গামছা দিয়ে গায়ের ঘাম মুছতে থাকে। বের হতে হবে একটু পরে, বিকেল সোয়া চারটা বেজে গেছে প্রায়। গরম কালের এই একটা অসুবিধা সোয়া চারটা বাজলেও বাইরে তাকিয়ে মনে হচ্ছে এখনো দুপুর বেলা।

ক্র্যাচ নিয়ে তানভীর বের হল বাসা থেকে, ক্র্যাচ নেওয়ার কারন হল দুই মাস আগে একটা এক্সিডেন্ট এ তানভীরের এক পা কাটা পরে।
তানভীর মতিঝিল এর জন্য সি,এন,জি ঠিক করল। শ্যামা এর বাসায় কি জানি একটা অনুষ্ঠান আছে, সব বন্ধুদের দাওয়ায় দিয়েছে শ্যামা। হয়ত তানভীরের কথা ভুলে গেছে, তাই বলে তানভীর তো আর না যেয়ে থাকতে পারেনা।
তানভীর আর শ্যামার রিলেশন প্রায় চার বছর হতে চলল। গতকাল তাদেরই এক বন্ধু করিমের সাথে দেখা, করিম বলে শ্যামা নাকি তার সাথে আর রিলেশন রাখতে চায়না, একটা পঙ্গু মানুষের বোঝা সে সারাজীবন বয়ে বেড়াতে পারবেনা।
তানভীর মোটেও বিশ্বাস করেনি করিমের কথা। শ্যামা মনে হয় একটু ব্যস্ত ইদানিং তাই আর তাকে ফোনে পাওয়া যাচ্ছেনা। আজ যেহেতু শ্যামার বাসায় কোন অনুষ্ঠান আর তাই তানভীর যাচ্ছে করিমের সামনেই তার ভুল টা ভাঙ্গিয়ে দিতে।

শ্যামার বাসার সামনে এসে থামলে তানভীর সি,এন,জি থেকে নেমে যায়। শ্যামার বাসায় লাইটিং এর কাজ চলছে, বেশ একটা উৎসব মুখর একটা পরিবেশ। তানভীর ভিতরে ঢুকে সারপ্রাইজ হতে চায়না তাই সে ক্র্যাচ ভর দিয়ে দিয়ে গেট এ বসা দারোয়ান এর কাছে গিয়ে জিজ্ঞেস করল_ভিতরে কি হচ্ছে?
আফার তো আজকে এঙ্গেজমেন্ট, আফনে কে?
তানভীর ভাবলো সে ঠিক মত শুনতে পায়নি, তাই সে আবার জিগ্যেস করে_ কি?
শ্যামা আফারে আজকা বিয়ার আংটি পরাইব। আফনে আফার বন্ধু ? তাইলে ভিতরে চইলা জান সবাই আসে ভিতরে।
এতক্ষণে তানভীর সম্বিত ফিরে পেল _
নাহ আমি কিছু হইনা শ্যামার। এই বলে তানভীর ঘুরে ক্র্যাচ ভর দিয়ে হাঠতে থাকে। এখান থেকে যত দ্রুত সম্ভব দূরে চলে যেতে চায় তানভীর, কিন্তু ক্র্যাচ টা তার গতি কে ধীর করে দিচ্ছে, কানে বাজছে উৎসব মুখর অসহ্য কোলাহলের শব্দ।

১৭৬জন ১৭৬জন
0 Shares

১০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য