অসম্পূর্ণ

মনোয়ারা সুলতানা সোনিয়া ৭ জুলাই ২০২০, মঙ্গলবার, ১০:৩৮:৫৮অপরাহ্ন অণুগল্প ২৭ মন্তব্য

নদীর ধারে বসে আছে নীলিমা। আজ তার পাশে আসিফ নেই। অথচ আজকের আগে নীলিমা কখনো এখানে একা বসেনি। তবে একটু আগে একা ছিল না। আসিফ ছিল। আসিফ ই নীলিমাকে আসতে বলেছিল। সব সম্পর্ক শেষ করে দিতে আজকে আসা। অবশ্য একপ্রকার টেনে টেনে চলছিল ওদের সম্পর্ক।

আসিফ আর নীলিমা খুব ভাল বন্ধু ছিল। দশ বছরের বন্ধুত্ব একদিন অন্য মোড় নিল। কিন্তু তখন দুজন‌ই বিবাহিত। কেন এমন হল তার কোন ব্যাখ্যা ওদের দুজনের কারো কাছে নেই। সম্পর্কটা ভাল‌ই যাচ্ছিল। সংসার আর সম্পর্ক দুটোই ভাল‌ই মেইনটেইন করছিল দুজনে। কিন্তু আসিফ কিছুদিন ধরে অন্যরকম আচরন করছিল। মোহিনী মানে আসিফের ব‌উ নাকি সন্দেহ করছে। নীলিমা কিছুতেই বুঝতে পারছিলনা। এত সাবধানে থাকার পর ও মোহিনী কেন সন্দেহ করবে। আসিফ বাসায় থাকা কালিন নীলিমা কখনো ফোন, মেসেজ কিছুই করতোনা।এমনকি সে নিজে থেকে ফোন করা থেকেও বিরত থাকত। আসিফ সুযোগ সুবিধা মত ফোন, মেসেজ করত।খুব একটা দেখাও করোনা। মাসে এক অথবা দুবার। প্রথম প্রথম নীলিমার খুব কষ্ট হত। ওর খুব ইচ্ছা করত সকাল বিকাল ফোন করে কথা বলতে। মাঝে মধ্যে মিষ্টি মিষ্টি মেসেজ দিতে ইচ্ছে করত। কিন্তু আসিফের অসুবিধা হবে ভেবে ইচ্ছে গুলো দমিয়ে রাখত। খুব ইচ্ছে করত রিক্সা করে সারা শহর ঘুরে বেড়াতে, ঝুম বৃষ্টিতে ভিজতে, একসাথে ফুচকা খেতে, দুজনে মুখোমুখি বসে ঘন্টার পর ঘন্টা কাটাতে। কিছুই করতোনা।সবকিছুর বিনিময়ে চাইত আসিফ ওর পাশে থাকুক। প্রেমিক নয় ভালোবাসা হয়ে।

আজ সবকিছুর অবসান করে দিল আসিফ। আসিফ আর এই মানসিক প্রেসার নিতে পারছেনা তাই সম্পর্কের ইতি টানল আজ। নীলিমা কিছুই বলতে পারেনি। আসলে কিছু বলার ছিল না। আসিফের চলে যাওয়া নিঃশব্দে দেখেছে। গত এক ঘন্টা ধরে নদীর ধারে বসে আছে। চারপাশের এত কোলাহল ওকে স্পর্শ করছেনা।

মাঝির ডাকে নীলিমা সম্বিত ফিরে ফেল। “আম্মা নৌকায় চড়বেন?ব্রিজের নীচে থেকে ঘুরায় আনুম। দুইশ টেকা দিয়েন। ” নীলিমা সম্মোহিতের মত নৌকায় উঠে বসল। মাঝ নদীতে একটা নীল আঁচল ভাসছে।

২৯২জন ৩জন
22 Shares

২৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ লেখা

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য