অসমাপ্ত প্রেম

সুরাইয়া পারভিন ৭ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১০:২৮:০৪অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩৩ মন্তব্য

একবার মনে হলো ফিরে যাই

তোমার ঐ বন্ধ দরজার এপার থাকে

পেছন ফিরতেই থমকে গেলাম আমি
নাহ আর চলতে পারছি না।
দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় ক্লান্ত শ্রান্ত অবসন্ন দেহকে
সামনে এগিয়ে নেবার ক্ষমতা নেই আমার
আবার পিছন ফিরে তোমার দরজায়
অাঘাত করবো এমন সাহসও যে পাচ্ছিনে।
অনেক কষ্টে বন্ধ দরজায় আঘাত করে

তোমার দোর খোলার অপেক্ষায় থাকলাম।

ঠিক এমনি সময় কাঁধের উপর আলতো হাতের স্পর্শে চমকে উঠি!
ভয়ে বুকটা কেঁপে ওঠে ,কি জানি কার স্পর্শ?
(নিলয় কখনো নীরাকে স্পর্শ করেনি তাই এ স্পর্শ চেনা নয় নীরার)

সন্ধ্যায় আধো আলো ছায়ায় নীরা কে চিনতে একটু ভুল হয়নি নিলয়ের

নীরা!তুমি?

নিলয়! হ্যাঁ এতো নিলয়,নিলয়েরই কণ্ঠ। দ্রুত পেছন ফিরে দেখি
নিলয় ঠাঁই দাঁড়িয়ে আছে

তুমি! তুমি বাইরে তাহলে দরজার ও পারে,,,,,,,,,,

দরজা তলা বন্ধ নীরা, তুমি বোধহয় খেয়াল করো।
ওহ!
নীরা! কি হয়েছে তোমার, ঠিক আছো তুমি
কেমন আছো তুমি নীরা?

হ্যাঁ! আমি ঠিক আছি, ভালো আছি নিলয়, তোমাকে কষ্ট দিয়ে আমি ভালো আছি,তোমার থেকে দূরে গিয়ে আমি ভালো আছি। ভালো আছি আমি ভালো আছি,ফুঁপিয়ে উঠলো নীরা ।

নীরা! এতো রাতে তুমি কোথা থেকে এলে, সেই যে গেলে চলে, আজ এতো দিন পর কোথা থেকে এলে নীরা?

নিলয়, তুমি কেমন আছো?

তুমি জানো না নীরা আমি কেমন আছি, কেমন থাকতে পারি?

জানি নিলয়, আমি জানি তুমি কেমন আছো, কতোটা কষ্টে আছো? যে কষ্ট আমি তোমায় দিয়েছি তাতে কেউ ভালো থাকে না নিলয়। জানি আমি জানি

আচ্ছা বাদ দাও নীরা
না নিলয় আজ আমাকে বলতে দাও,আজ আর থামিয়ে দিও না নিলয়।এতো দিন যে যন্ত্রণা আমি তোমাকে দিয়েছি সেই একই যন্ত্রণা আমিও বয়ে বেড়িয়েছি নিলয়।একটা দিনের জন্য,একটা মুহূর্তের জন্য আমি তোমায় ভুলতে পারিনি নিলয়। নিলয় আমাকে শাস্তি দাও, শাস্তি দাও নিলয়,,,,,,
বলেই হু হু করে কেঁদে উঠলো নীরা

নীরা, এই নীরা শান্ত হও। তোমার উপর আমার কখনো কোনো অভিযোগ ছিলো না নীরা, না আজ আছে। আজো তেমনই ভালোবাসি যতটা আগে বাসতাম।ভালোবাসাকে শাস্তি দেওয়া যায় না নীরা।আর তাছাড়া তুমি নিজেও তো কম কষ্ট পাওনি ।

নিলয়, আমি সব পিছুটান ছিন্ন করে তোমার কাছে এসেছি। গ্রহণ করবে আমায়, এই আমাকে স্থান দেবে তোমার পায়ে?

বলেই নীরা ঝাঁপিয়ে পড়লো নিলয়ের পায়ে।

এই নীরা কি করছো, কি করছো? ওঠো তোমার স্থান পায়ে নয়, বুকে। বলেই নীরাকে বুকে টেনে নিলো।
নীরাও নিলয় কে শক্ত করে ধরলো

দুজন দুজনার বাহুডোরে বাঁধা পড়ে গেলো। একে অপরের ভালোবাসায় শিক্ত হয়ে উঠলো। জোনাকিরা তাদের আলো ছড়িয়ে দিলো, ফিরে পেলো তারা নব যৌবন
মহাকাল স্বাক্ষী হলো তাদের ভালোবাসার।সমাপ্ত হলো তাদের অসমাপ্ত প্রেম,তৃষিত হলো দুটি চাতক প্রাণ

১৬০জন ১জন
10 Shares

৩৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য