অসমাপ্ত ডাইরি

উর্বশী ৭ জুলাই ২০২১, বুধবার, ০২:০৩:৩৮পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১২ মন্তব্য

এখন  প্রতিদিন ই  বৃষ্টি  হয়, ভিজে যায়  ব্যালকনি,  ভিজে যায় বকুলের শাখা। কোথাও আবার কাঁদা মাটির স্রোত উপছে পড়ে। এই বাদলে ভিজে যায় পরিযায়ী  মানুষের আশা।  কারো ভাসে ছলছল চোখ,  কারো ভাসে খড়কুটোর  বাসা। হুম,প্রতিদিন  বৃষ্টি হয়। প্রেমিক যুগল যেমন ভিজে যায়,তেমনি ভিজে যায় চিলেকোঠার  কবুতর। দিন মজুরের চোখ ভরা জল, বৃষ্টির মত ছলছল।সুখীজনের চোখে  ঘুমের চাদর। বর্ষা এলে সুখ আসে  —- যাদের নেই কোনো  কিছুর  অভাব।
বজ্রপাতে  প্রান যায় দামাল কৃষকের— দেশ গড়া যাদের স্বভাব।
বৃষ্টি  ভেজা আকাশ ছুঁতে গিয়ে স্মৃতির ডাইরির জীবন গল্প পাতায়,
জীবন যেখানে তেমন আছে সোনালী  অতীত ফিরে দেখায়।
মনের কথা লিখতে গেলে আকুল  মনে আকুতি  জাগায়,
তার মুখখানি আজও  ভেবে বাদল চোখের বৃষ্টি  ঝরায়।
মন উদাসের কারবার হয় আষাঢ়  মাসে ,
তাকিয়ে দেখি আঁখি ভিজে যায় চারপাশে।।
বৃষ্টি শুরু হলে কেঁদে চলে অবুঝ শিশুর মত। জল নূপুরের  এই ঝমঝম আর ঝমঝম  নিক্কণে অনুক্ষণে মেতে ওঠে।
অনন্যার গোপন  চিঠি গুলো তার কলিজার ড্রয়ারে ই লুকানো ছিল।  চিঠি গুলো কখনোই  ডানা মেলেনি। ভেজা মনের শেকড় — বাকড়ে যন্ত্রনার খোঁজে কাঠগোলাপ, কদম,দোলন চাঁপার যুথীবনে। তাইতো নকশী বুননে সময়টা ধরে আছে।
দেখো —- চোরাই মেঘের  সাজগোজ  যেন জমকালো আয়োজন। হঠাৎ  ফিক করে হেসে ওঠে বিজলীরা। মেঘলা আকাশের নীলাঞ্জনা চোখ এভাবেই  বার বার ফিরে আসে সবকিছু উজার করে।
তবুও অপেক্ষায়  সম্পর্ক গুলো হোক র ঙিন আপন,
দোষে নয় গুনে ভরা ছেলেবেলার মত খিলখিলে যাপন।
                            অসমাপ্ত ডাইরি। 

১৩৫জন ৫০জন
0 Shares

১২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য