অর্পিতা ৪

সঞ্জয় কুমার ২৩ জুন ২০১৪, সোমবার, ০৯:১৯:৩৪পূর্বাহ্ন গল্প, সাহিত্য ১৩ মন্তব্য

কিছু টাকা ধার দিতে পারবেন?
ধরুন দশ হাজারের মত

না মানে হ্যাঁ
চেষ্টা করে দেখতে পারি

কি ভাবছেন এতগুলো টাকা হঠাৎ কিভাবে জোগাড় করবেন?

আমিও রাত থেকে এই সন্ধ্যা পর্যন্ত এই কাজেই ব্যাস্ত ছিলাম

মায়ের সিটি স্ক্যান সহ ঔষধ ডাক্তার মিলিয়ে বেশ কিছু টাকার দরকার ছিল

ছিল ?
মানে এখন নেই ?

এখনও আছে কিন্তু টাকার জন্য আপাতত কোন টেনশন নেই ।

আমার দাদা (বড় ভাই) ঢাকা থেকে দশ হাজার টাকা পাঠিয়ে দিয়েছেন ।

শুধু টাকা পাঠালেন উনি আসলেন না !!!

উনি খুব ব্যাস্ত মানুষ

যত ব্যাস্তই হোক মায়ের অসুস্থতার খবর শুনেও আসলেন না !!!

এর পিছনে লম্বা ইতিহাস আছে অন্যকোন দিন বলব । এখন হাতে সময় কম দ্রুত মাকে সিটি স্ক্যান সহ সব পরিক্ষা গুলো করাতে হবে ।

আমি কি আপনার সাথে আসতে পারি ?

চলুন

……………. রাত দশটা ।

রাত তো অনেক হয়েগেছে আপনার খাওয়াদাওয়া ও হয়নি । মহিলা ওয়ার্ড রাতে পুরুষ থাকতে দেবে না । আমি মায়ের কাছে থাকব রাজু বাড়ি চলে যাবে । আবার সকালে আসবে । আপনিও সাবধানে চলে যেতে পারেন । আপনার কাছে আজীবন ঋনী থাকব । ভাল থাকবেন । গুড নাইট ।

আস্তে আস্তে হোষ্টেলের পথে পা বাড়ালাম । কোনমতে শরীর টাকে টেনে রুমে ঢুকেই শুয়ে পড়লাম । বিকালের পর থেকে শরীর আর মনের উপর দিয়ে রীতিমতো ঝড় বয়ে গেছে ।

একটু পর মিলন এল
কিরে তোর মাসিমার কি অবস্থা এখন?

সিটি স্ক্যান করানো হয়েছে রিপোর্ট হাতে আসলে বোঝা যাবে আর জ্ঞান না আসা পর্যন্ত কিছুই বলা যাচ্ছে না ।
হু ………চিন্তা করিস না সব ঠিক হয়ে যাবে । রাতে খেয়েছিস? টেবিলে খাবার রাখা আছে খেয়ে ঘুমিয়ে পড় । আমার আবার কাল ক্লাস টেষ্ট আছে ।

শুয়ে শুয়ে ভাবছি
একটা অপরিচিতা মেয়ের জন্য আমি এত কিছু কেন করছি ?ওর প্রতি অন্যরকম একটা দায়িত্ববোধ কাজ করছে কেন?

সে ই বা আমাকে এত বিশ্বাস করছে কেন?

ধূর কোন হিসাবই মিলছে না ।

জীবনে কখনও এমন সমস্যার সম্মুখীন হয়নি ।

জয় ………….জয় ……… তারাতারি ওঠ সকালে ক্লাস আছে না তোর

অহ সাতটা পয়তাল্লিশ !!আটটায় ক্লাস
দ্রুত কোন মতে ব্রাস করে নাস্তা করেই ক্লাসে ।

লাঞ্চের সময় হঠাৎ রাজুর ফোন

চলবে…………………..

৩৩৬জন ৩৩৬জন
0 Shares

১৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ