অর্পিতা ২৫

সঞ্জয় কুমার ৩ আগস্ট ২০১৪, রবিবার, ১০:০৫:৪৪পূর্বাহ্ন গল্প, সাহিত্য ৯ মন্তব্য

জয় ওয়াস রুম থেকে ফ্রেস হয়ে এখন ড্রয়িং রুমে । ডাইনিং রুমে দুপুরের খাবার রেডি ।

ভাইয়া খেতে এস ভাবি ডাকছে , আপনিও আসেন ।

মেয়েটা র বয়স ষোল সতের হতে পারে । কন্ঠটাও বেশ সুন্দর এই মেয়ে গান করলে ভাল নাম করতে পারবে । সম্ভবত সে এই লোকটার বোন সম্পর্কের কেউ ।

রাতুল:
শাহিন ভাই আসেন আমরা একসাথে বসি ।

দাঁড়ান দাঁড়ান আপনি আমার নাম জানলেন কিভাবে ?

এটা কোন ব্যাপার নয় টেবিলে আপনার অফিসের আইডেন্টি কার্ডটা পেয়েছিলাম ওখান থেকে দেখেছি ।
ঐশি তুমিও আমাদের সাথে বস ।
তোমার নাম জেনেছি ভাবির কাছ থেকে । ভাবি কিচেন থেকে বেশ কয়েক বার তোমাকে ডেকেছে ।

শাহিন:
আপনি তো সবই জেনে গেলেন । কিন্তু আপনার নামটা তো জানতে পারলাম না ।

আমি জয় ।

ঠিক আছে জয় আপনি ড্রয়িং রুমে রেষ্ট নিন আমি একটু বাইরে বের হব । একবার অফিস থেকে ঘুরে আসা দরকার । এই ঐশি দেখিস তোর ভাইয়ার কোন কিছু প্রয়োজন হয় কিনা ।

ঐশি বারবার আড় চোখে জয়কে দেখছে । জয় এতক্ষণ খেয়াল করেনি এবার চোখে চোখ পড়ায় দেখতে পেয়েছে ।

ঐশি:
আপনি কি করেন ?

চাকুরি

কি চাকুরী ?

এই তো ছোট খাট চাকুরী ।

চা খাবেন ?

না

তোমাদের টিভির রিমোট টা কই ?

এই তো

হাত থেকে রিমোট টা নেয়ার সময় পড়ে গেল । তুলতে গিয়ে দুজনের মাথায় ঠোকাঠুকি ।

এটা আপনি কি করলেন ?

আমি আবার কি করলাম ?

মাথায় মাথায় একবার লাগলো কি হয় জানেন ?

না

মাথায় শিং গজায় ।

সত্যি !!! বল কি !!

তাহলে এখন উপায় ?

উপায় একটা আছে দুইবার লাগলে ঠিক হয়ে যায় ।

না আমি এসব বিশ্বাস করি না পারব ও না ।

না বললে হবে না । আমার মাথায় শিং উঠলে আমাকে বিশ্রী দেখাবে । কেউ আমাকে বিয়ে করবে না ।

জয় বেশ মজা পেয়েছে । ।

ঠিক আছে তবে তোমার মাথায় শিং উঠুক । আমি জীবনে শিং ওয়ালা মেয়ে দেখিনি ।

মাথায় শিং উঠলে আমাকে কে বিয়ে করবে । আমার কোনদিন বিয়ে হবে না ।

ঠিক আছে যাও কেউ বিয়ে না করলে আমি করব ।

মেয়েটা দ্রুত মুচকি হাসি দিয়ে চলে গেল ।

জয় ভাবছি একটু বেশী হয়ে গেল বোধহয় । মেয়েটার মনে হয় মেন্টাল প্রবলেম আছে । না হলে এত বড় মেয়ে বাচ্চাদের মত বায়না ধরবে কেন ?

চলবে................

0 Shares

৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ