অর্পিতা পর্ব ২৮

সঞ্জয় কুমার ১০ ডিসেম্বর ২০১৪, বুধবার, ০৪:১৮:৩৯অপরাহ্ন গল্প, সাহিত্য ৯ মন্তব্য

ব

একি ঐশি তুমি কখন আসলে ?

ঐশি এক দৃষ্টে জয়ের দিকে তাঁকিয়ে আছে , কোন ভাবান্তর নেই ।

জয় এবারে বেশ ভয়ে পেয়ে শাহিন কে ডাকল ।

শাহিন ভাই তারাতারি ছাদে আসেন ।

শাহিন:
জয় ভাই কি হয়েছে ?

ঐ যে দেখুন ঐশি কে ।

অহ বুঝেছি আবার সেই সমস্যা , এতদিন তো ভালোই ছিল ।

কি সমস্যা??

আপনাকে পরে বলব এখন ওকে ধরেন ,নিচে নিয়ে যেতে হবে ।

ঐশি কে নিচে ঘুমের ইনজেকশন দেয়া হয়েছে । গায়ে অল্প জ্বর ও আছে । ঘোরের মধ্যে প্রলাপ বকছে ।

চলুন আমরা পাশের ঘরে যাই ।

আজ থেকে প্রায় দুই বছর আগে । ঐশির হবু স্বামী রোড একসিডেন্টে মারা যায় । আসলে ঐ ছেলেটার সাথে ঐশির বিয়ে পারিবারিক ভাবে ঠিক করা ছিল । ছেলেটি ঢাকা মেডিকেলে পড়ত । এরপর থেকেই ঐশি কেমন যেন হয়ে যায় । রাতে ওকে কবরস্তানে পাওয়া যেত । আমরা প্রথমে গুরুত্ব দিই নি কিন্তু এরপর থেকে ওর মধ্যে অদ্ভুত পরিবর্তন লক্ষ করতে লাগলাম । কারও সাথে তেমন কথা বলত না মাঝেমধ্যে কোথায় যেন হারিয়ে যেত । গ্রামের অনেকের পরামর্শে অনেক ওঝা দেখালাম কাজ হল না । যে বোনটার কথা হাসিতে আমাদের বাড়ি সবসময় মুখরিত থাকত সেখানে এখন শুধুই শূন্যতা মরা বাড়ির মত নিস্তব্ধ পরিবেশ । সবাই পরামর্শ দিল ঐশিকে বড় মানুষিক রোগের ডাক্তার দেখাতে । এরপর একদিন রাতে ঐশির আচরণে অদ্ভুত অস্বাভাবিকতা দেখলাম । প্রচন্ড জ্বর সাথে প্রলাপ বকছে । কোনদিন ও আমার নাম ধরে ডাকেনি ঐ দিন হঠাৎই আমার নাম ধরে ডাকেছিল । শাহিন তুই ঢাকায় চলে যা , গ্রামে থাকলে তোর অনেক ক্ষতি হবে । এরপরই আমরা ঢাকা চলে আসি । ভাল একটা চাকুরী ও পেয়ে যাই । ঢাকায় আসার পর বড় ডাক্তার দেখানো শুরু করি । অবাক ব্যাপার হল ঐশি নিজেই ঐ ডাক্তারের কথা আমাকে বলেছিল । আজ পর্যন্ত ও যতটা কথা বলেছে একটাও মিথ্যা হয়নি ।

সবচেয়ে অবাক ব্যাপার কি জানেন? মামুন মানে ওর মৃত হবু স্বামীর সাথে আপনার চেহারার মিল আছে ।

সবকথা শোনার পর জয়ের গলা শুকিয়ে কাঠ ।

একটু পাশের ঘর থেকে শোনা গেল

জয় কোথায় ওকে নিয়ে আয়

চলবে......

0 Shares

৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ