অবতরণিকা

প্রদীপ চক্রবর্তী ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, রবিবার, ০৬:১৪:৫৬অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩১ মন্তব্য

এই বিশ্ব ব্রহ্মান্ডে মানুষ সাহিত্য চর্চা কখন থেকে শুরু করেছে বা সাহিত্যের গোড়াপত্তন কখন কোথায় আমি জানিনা। তবে আমার একান্ত ভাবনা স্রস্টার সৃস্টির প্রথম লগ্ন থেকেই সাহিত্যের বিচরণ। কারণ এই ধরণীর জন্মলগ্ন থেকেই যদি,চন্দ্র,সুর্য, সাগর নদী,ফুল,গাছ, পাহাড়,আকাশ,থাকে,তাহলে সাহিত্যও ছিলো।
কারণ যুগে যুগে মহাকবিগণ সাহিত্যিকগণতো এইসব প্রকৃতি থেকেই আস্বাদন করেছেন সাহিত্যের রস। এক কথায় ঐসব প্রকৃতির মধ্যেই লুকায়িত গল্প,কবিতা,উপন্যাসের সারবস্তু।
আমিও তাই ঐ প্রকৃতির প্রেমে পড়েছিলাম ছোটবেলা থেকেই।
নিজ বাড়িতেই ছিলো নানা রঙের ফুলের বাহার বিভিন্ন ধরণের গাছ,আর সেইসব গাছে আসতো অনেক অনেক পাখি। সেইসবের প্রতি আকর্ষন ছিলো মারাত্বক,এইসব দেখতাম আর মনের কোঠায় চলে আসা বিভিন্ন রকমের কথাগুলো লিখে রাখতাম ডায়েরীতে। এইভাবেই অনেকের মতো আমার লেখাও শুরু ডায়েরী দিয়ে। আর ঘরে থাকা  বঙ্কিম চন্দ্র চট্টপধ্যায়,রবিন্দ্রনাথ ঠাকুর নিমাই ভট্টাচার্য,নজরুল ইসলাম, হুমায়ুন স্যার,ইমদাদুল হক মিলন এর মতো রথি মহারথীদের বই পড়তাম। পড়ে পড়েই লেখার প্রতি আগ্রহ জন্মে। ছোটবেলা থেকেই লেখালেখির প্রতি ছিলো আগ্রহ বেশ।

২০১৫ তে এস,এস,সি দেওয়ার পরে ফেইসবুকে বেশী সময় দিতে থাকি। এখানেও অনেকের লেখার ভক্ত হয়ে নিজেকে আরো লেখার প্রতি উৎসাহ দিলাম।

ধীরে ধীরে অনলাইনে পরিচয় ঘটে আমার খুব প্রিয় এক মানুষ ব্লগার শ্রদ্ধেয় ইকরাম জিসান মোঃ শামসুল দাদার সাথে। এছাড়া ব্লগার ইয়াসমিন দিদির পরামর্শে যোগ দেই “সোনেলা”ব্লগে। সেখানে ছোট ছোট কিছু লেখা দিলে লোকজনের বাহবা ও উৎসাহ পাই যে উৎসাহে উৎসাহিত হয়ে ছোট ছোট পর্ব দিয়ে আরম্ভ করি “পর্বতকন্যের ইতিকথা” নামক একটি উপন্যাসের সিরিজ। আর সেখানে যখন সিরিজ শেষ হয় তখন অনেক প্রশংসা পাই অনেক জ্ঞানীজনের কাছ থেকে। ভাবতে চাই আসলেই কী লেখাটি এতো ভালো? না-কি শুধু প্রশংসার জন্য প্রশংসা? ভাবনার মাঝেই দুঃসাহসে জন্ম দিয়ে দেন ব্লগেরই অনেকে,বিশেষ করে…
ইকরাম দাদার কথাতো বললামই.শ্রদ্ধেয় ব্লগার মনির হোসেন মমি, শ্রদ্ধেয় ব্লগার তৌহিদ ইসলাম ,শ্রদ্ধেয়
ব্লগার সাবিনা ইয়াসমিন,শ্রদ্ধেয়
ব্লগার নিতাই দাদাসহ সবার কথা “পর্বতকন্যের ইতিকথা” উপন্যাস আকারে বের করা।
এইসব গুণীজনের উৎসাহ আর ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে নিলাম বই প্রকাশের!
যেহেতু এই লেখা বই আকারে আমার প্রথম,তাই ভুল ভ্রান্তি থাকবেই। যশ,খ্যাতির জন্য নয়,শুধু নিজের মধ্যে গড়ে উঠা ইচ্ছা ও আকাঙ্ক্ষার প্রকাশ এই গল্পখানা বই আকারে পাঠকের কাছে তুলে দিলাম.আশা করি ভুলগুলো ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন আর যদি বিন্দুমাত্র ভালো লাগে পড়ে,তাইলে আমার পরিশ্রম সার্থক.এবং আমি নতুন কিছু লেখার আগ্রহ পাবো বলে বিশ্বাস করি।

ভরা ফাল্গুনে যখন হেমন্ত ছোঁয়ে যায়,
পাঠক তখন প্রকৃতির উদ্ভাস খুঁজে পর্বতকন্যের ইতিকথায়।
..
বই পড়ুন,আপনার জ্ঞাণকে আরো সমৃদ্ধ করুণ।

” পর্বতকন্যের ইতিকথা ”
.
এবারের একুশের বইমেলায় প্রকাশিত আমার প্রথম উপন্যাস “পর্বতকন্যের ইতিকথা”

..
প্রচ্ছদ- জাহেদ রবিন
প্রকাশক- মাছরাঙা প্রকাশন

বইটির পরিবেশক

সিলেট বইমেলায়-
জসিম বুক হাউস স্টল ( ২৩/২৪ )

ঢাকা বইমেলায়
প্রান্ত প্রকাশনি, স্টল নং(৬০৮-৬০৯)

বইমেলায় বিক্রয়মূল্য – ১৫০/-

৩০০জন ১২১জন
33 Shares

৩১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য