অপেক্ষা

রুমন আশরাফ ৪ জুন ২০২২, শনিবার, ০৪:৫৬:৫৮অপরাহ্ন রম্য ৯ মন্তব্য
আমার সামনে তিন তিনটি মৃতদেহ পড়ে আছে। আমি বসে আছি বেঞ্চিতে। রাত প্রায় অনেকটা বেজে গেছে বোধহয়। হাতে ঘড়ি নেই। তাড়াহুড়ো করে বাড়ি থেকে বের হতে গিয়ে ঘড়িটা আনা হয়নি। আমি পকেট থেকে মোবাইল বের করে সময় দেখলাম। রাত সোয়া দশটা বাজে। মোবাইলের আলো দিয়ে এবার মৃতদেহগুলোকে ভালভাবে দেখলাম। নিথর দেহগুলো পড়ে আছে।
কিছুক্ষণ আগে এই জায়গাটিতে এসে কেবল দাঁড়িয়েছি। অমনি এরা আমার উপর আক্রমণ শুরু করলো। শরীরে আঘাত করে রক্ত বের করলো আমার। আমিও তো কম না। দিলাম তিনটাকে শেষ করে। একটাকে তো একদম পিষে মেরেছি। আমার হাতে এখনও রক্তের দাগ লেগে আছে। বড়ই বিশ্রী ব্যাপার। হাত ধোবার মতো পানিও নেই সাথে। আর এই জায়গা থেকেও সরতে পারছি না। কিছুক্ষণের মধ্যেই আমার কাঙ্খিত মানুষটি এখানে এসে পৌঁছাবে। একটু আগেই মোবাইলে কথা হল।
এদিকে প্রচণ্ড ক্লান্ত আমি। ভীষণ পিপাসাও পেয়েছে। একটু ভয় ভয়ও লাগছে। একে তো রাত তার উপর আবার প্রশাসনের ঝামেলা, ছিনতাইকারীর ভয়ও আছে। মৃতদেহগুলো নিয়ে এখন আমার আর মাথা ব্যথা নেই। প্রশাসনের লোক এসে যদি কিছু জিজ্ঞাসা করে, আমি সত্য কথাই বলবো বলে ঠিক করলাম।
আধো আলো আধো অন্ধকারে হাতের তালুতে লেগে থাকা রক্তগুলো দেখছি। শুঁকিয়ে কেমন চটচটে হয়ে গেছে। কিছুই ভালো লাগছে না। অফিস থেকে আজ দেরিতে বের হয়েছি। ভীষণ কাজের চাপ ছিল। বের হবার সময় হঠাৎ আমার প্রাক্তন কলিগ রাশেদ ফোন দিল। অনেকদিন হল দেখা হয় না আমাদের। রাশেদের জন্যই অপেক্ষা করছি এই পার্কে।
বেশ অনেকক্ষণ হয়ে গেছে। রাশেদের খবর নেই। কাছাকাছি এসেছে কিনা জানার জন্য মোবাইল বের করতেই দেখি রাশেদ এগিয়ে আসছে আমার দিকে। এসেই জিজ্ঞাসা করলো-“সরি অনেকক্ষণ বসিয়ে রাখলাম, কি করছিলেন এতক্ষণ একা একা?” রক্ত লেগে থাকা হাতদুটো দেখিয়ে উত্তর দিলাম, “বসে বসে এতক্ষণ তিনটা মশা মেরেছি।“
১৩১জন ২৬জন
0 Shares

৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন



লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য




ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ