অপরাজিতা

অনুশঙ্কর গঙ্গোম্যাক্সিম ২৫ নভেম্বর ২০১৩, সোমবার, ০১:৫৯:৪৫পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৮ মন্তব্য

শীতের সন্ধ্যা, বাহিরে কুয়াশাচ্ছন্ন।হোষ্টেলের রুমে একা বসে আছে তুহিন,রুমের বন্ধুরা ছুটিতে বাড়িতে। কাল তুহিনের ভালোবাসার চারবছর পূর্ণ হবে ,কিন্তু অপরাজিতা তো পাশে নেই।অনেক দিন পর রাগ অভিযোগ ভুলে আজ খুব ইচ্ছে করছে অপরাজিতাকে ফোন দিতে।মোবাইলটা হাতে নিয়ে Backup লিখা নাম্বারে কল দেয়, ফোন ওয়েটিং!বুকটা ধক করে উঠল,অপরাজিতা তাদের পাশের মহিলা হোষ্টেলেই থাকে তবুও কত দুরত্ব দুজনের। কিছুক্ষণ পর আবার ফোন দেয়,তাও ওয়েটিং! হয়তো নতুন কোন বন্ধুর সাথে কথা বলছে।অপরাজিতা আর তুহিনের ভালোবাসা হয় একেবারেই কাকতালীয় ভাবে। হোস্টেলের এক বড় আপুর বিয়েতে দুজনের পরিচয় হয়,তারপর একসাথে কত হাসি কান্নার কথা বলা। মাসশেষে টিউশনির টাকা পেয়ে অপরাজিতাকে কতকিছু গিফট করত। তুহিন একটু লাজুক প্রকৃতির লজ্জায় কখনও অপরাজিতার হাতটি পযর্ন্ত স্পর্শ করতে পারেনি।তাদের ভালোবাসা দিনদিন গভীর হতে লাগল। একরাতে তুহিনের একবন্ধু বিদেশ থেকে অনেক দিন পর ফোন করে, অপরাজিতা তুহিনের ফোন প্রায় তিন ঘন্টা ব্যস্ত পায়।এরপর থেকেই অপরাজিতা তুহিনকে অবিশ্বাস করতে শুরু করে, তাছাড়া সেদিন নাকি তুহিনকে রিকশায় এক মেয়ের সাথে ও দেখেছে অপরাজিতার বান্ধবী তমা। সবকিছু খুলে বলার পরও তুহিন কে অবিশ্বাস করে অপরাজিতা দিনদিন তাদের মধ্যে দুরত্ব বাড়তে থাকে। তুহিন ফোন দিলে রিসিভ করেনা অথবা ডাইভার্ট করে দেয়। সামনাসামনি দেখা হলেও এড়িয়ে চলে অপরাজিতা।দুজনের মধ্যে আজ যেন পাহাড় সমান দুরত্ব কেউ আর এখন কারও খবর রাখে না।তুহিন কয়েকবার যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করে ও ব্যর্থ হয়।রাত বাড়তে থাকে এসব পুরনো কথা ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়ে যায় তুহিন। মাঝরাতে ফোনটা বেজে উঠলো, তন্দ্রাচ্ছন্ন চোখে মোবাইলের স্কিনে চেয়ে দেখে Backup calling ……..
রিসিভ করতেই অপরপ্রান্তে থেকে অপরাজিতা বলে উঠে
-কেমন আছ তুহিন?
-ভালো,সন্ধ্যায় তোমাকে ফোন দিয়েছিলাম, ওয়েটিং এ ছিলে!তুমি কেমন আছ অপরাজিতা?
-ভালো না,সন্ধ্যায় গ্রামে মা সাথে কথা বলছিলাম, বাবা মারা যাওয়ার পর আমাকেই সব দেখাশোনা করতে হয়।
-তোমার বাবা মারা গেছে! আমাকেতো জানাও নি।
-দুই মাস হলো বাবা মারা গেল, আমার সাথে তো তোমার যোগাযোগ নেই, আর কোন মুখেই বা তোমাকে বলব,না বুঝে কত কষ্ট না দিয়েছি তোমাকে। ক্ষমা করে দিও আমাকে।
-বাদ দাও তো এসব কথা।
-আচ্ছা তুহিন আমরা কি আবার বন্ধুত্বের বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারিনা?
-তুমি আমাকে না বুঝে কত কষ্ট দিলে, আমি ফোন দিলে রিসিভ করতে না,আমি ভাবতাম নতুন কাউকে পেয়ে আমাকে হয়তো ভুলে গেলে।
-আমার সব ভুল ছিলো, তুমি ছাড়া আমি কারও সাথে নিজেকে মিলাতে পারিনা।
-আচ্ছা, তোমার মনে আছে, কাল আমাদের সম্পর্কের চারবছর পূর্ণ হবে, চল বিকেলে একসাথে আড্ডা দিয় সেই পুরনো ঠিকানায়।
-ঠিক আছে তাহলে আগামীকাল বিকেলে দেখা হচ্ছে,তুমি কিন্তু নীল শাড়ি পড়ে আসবে।
-আচ্ছা ঠিক আছে ,আর তুমি কিন্তু হলুদ পাঞ্জাবি পড়বে।
-শুভকামনা, শুভরাত্রি।

উৎসর্গ -প্রিন্স মাহমুদ।

২১২জন ২১১জন
0 Shares

৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

️️ 🍂️️ 💝 ️️ 🌟 🌺 💐 💥 🌻 🍄 🌹 💐 ⭐️ 🎉 🎊