অন্যরকম ভালবাসা ।

সঞ্জয় কুমার ২৯ জানুয়ারী ২০১৫, বৃহস্পতিবার, ১০:৩৩:৪২পূর্বাহ্ন গল্প, সাহিত্য ২৪ মন্তব্য

h

আমার নাম মামুন । আজ আমি আপনাদের একটা অন্যরকম ভালবাসার গল্প শোনাব ।

মেয়েটির সাথে পরিচয় হয়েছিলো ফেসবুকে । দুজনেই দুজনের লেখা খুবই পছন্দ করতাম । একদিন ও আমাকে চ্যাটে নক করে বলল আজকে আমি আপনার সাথে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা বলতে চাই ।

আচ্ছা বলুন ।

আমি কিন্তু আসলে একজন মেয়ে নই ।

মেয়ে না হলে , তবে কি ছেলে ?

না আমি ছেলেও না ।

তাহলে ?

আমি তৃতীয় লিঙ্গ , সহজ ভাষার বলতে গেলে আপনাদের দেয়া প্রচলিত নামে হিজড়া ।

কি বলছেন এসব!!

হ্যাঁ আমি যেটা বলছি এটাই চরম সত্যি । আমি বুঝতে পারছি আপনি ক্রমশ আমার প্রতি দূর্বল হয়ে পড়ছেন তাই আসল সত্যি টা আপনাকে জানিয়ে দিলাম । আমি চাইনা কেউ আমাকে প্রতারক মনে করুক ।

যদি কিছু মনে না করেন আপনার ব্যাপারে আর একটু বলবেন ?

আমার ব্যাপারে আর কি বলব । ছোট বেলায় মা বাবা কাউকেই পাইনি একটা এতিমখানায় বড় হয়েছি । একটু বড় হওয়ার পর এতিমখানার লোকেরা যখন বুঝতে পারল আমি আর দশটা সাধারণ মানুষের মত নই তখন ওরা আমার সাথে খারাপ আচরণ শুরু করল । মেয়ে ছেলে বন্ধু সবার থেকে আলাদা হয়ে পড়লাম । সেদিন থেকেই শুরু হল আমার একাকী জীবন । আমার এই অসহায় একাকিত্বের সুযোগ নিতে চাইল পরিচিত পুরুষ নামের কয়েকটা পশুরা । সেখান থেকে চলে আসি এলাকার হিজড়া দের দলে । পুরুষ মানুষদের তখন থেকেই আমি ঘৃণা করি । হিজড়া দের দলের সাথে আমি মানিয়ে নিতে পারছিলাম না । আমার জন্মের ত্রুটির জন্য তো আর আমি দায়ী নই তবে আমি কেন দায় সারাজীবন বয়ে বেড়াব ? এরপর সেখান থেকে পালিয়ে ঢাকা চলে আসি । আপনাদের সমাজ আমাকে স্বীকৃতি দেবে না বরং পদে পদে অপমান করবে তাই একটা মেয়ের ছদ্দবেশ নিলাম । পুরুষের দূর্বল দিক আমি ভালোমত জানি , জানি কিভাবে পুরুষকে নাকে দড়ি দিয়ে ঘোরাতে হয় ।
আপনাকে অন্যসব পুরুষের মত মনে হয় নি তাই আপনার কাছে সব কথা বললাম ।

কিন্তু ! আমি কি আপনার সাথে দেখা করতে পারি ?

পারেন , তবে এখন না । সময় হলে আমিই আপনাকে জানাব ।

এরপর প্রায় দুই মাস ওর কোন খবর নেই । ম্যাসেজ দিলে রিপ্লে আসেনা ।
আমি প্রতিদিন তাঁর ম্যাসেজের অপেক্ষায় থাকি ।

হঠাৎ একদিন ওকে অনলাইনে পাই ।

কি ব্যাপার আপনি এতদিন কোথায় হারিয়ে ছিলেন?

কোথাও হারায় নি তবে আজ এবং এখন হারিয়ে যাব । চিরতরে হারিয়ে যাব । আপনাদের পৃথিবীতে আর আপনাদের বিরক্ত করতে আসব না ।

কেন! কি বলছেন এসব উল্টাপাল্টা ।

আমি আপনার সাথে কোনদিন মিথ্যা বলিনি আজও বলছি না । আমি হয়ত পুরুষ বা মহিলা নই কিন্তু মানুষ তো । আপনাদের সমাজে পুরুষ আর মহিলা ছাড়া কারও স্বাভাবিক ভাবে বাঁচার অধিকার নেই । আমার রুম মেট সহ অফিসের সহকর্মী রা কিভাবে যেন টের পেয়েছে আমি মেয়ে নই । তারপর প্রকাশ্যে অপমান সহ আমার নারীত্বের পরীক্ষা নেয়া হয়েছে । মানুষ হিসাবে কি আমার এতটুকু লজ্জাবোধ আত্মসম্মানবোধ থাকতে নেই !
অনেক চেষ্টা করেছিলাম মানুষ হয়ে বেঁচে থাকার । পারলাম না আপনাদের সমাজ আমাকে বাঁচতে দিল না । আমি চিরতরে চলে যাচ্ছি ।

আপনি কি আত্মহত্যা করতে চাইছেন !

চাইছি নয় । আমি অনেকগুলি শক্তিশালী ঘুমের ঔষধ খেয়েছি । আমার অনেক ঘুম আসছে । আমি অনেকদিন শান্তিতে ঘুমাই নি আজ ঘুমাব ।

আপনি এ কি করছেন । আপনি আপনার মোবাইল নম্বর দিন । আমি আপনাকে মরতে দেব না ।
আমি ….আমি …. তোমাকে অনেক ভালবাসি প্লিজ আমাকে ছেড়ে যেও না ।

যাক মরার আগে অন্তত এতটুকু জেনে মরতে পারলাম ,পৃথিবীতে অন্তত কেউ আমাকে ভালবাসত ।

এরপর অনেকবার চেষ্টা করেছি অনেক ম্যাসেজ দিয়েছি কোন রিপ্লে আসেনি । আজও ফেসবুক খুলে তাঁর নামটার দিকে অপেক্ষা করে থাকি যদি কখনো তাঁকে আবার পাই । যে কোন মূল্যে তাঁকে আমি বাঁচাবোই।
জানি এই সমাজ তাঁর আর আমার সম্পর্ক কথনোই মেনে নেবে না । যে সমাজে মানুষের পরিচয়ে বেঁচে থাকা সম্ভব নয় সে সমাজ আমার নয় ।
আমারও প্রয়োজন নেই এমন সমাজের ।

৪৯৬জন ৪৯৬জন
0 Shares

২৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ