অন্ধকারে আমাদের আগামী প্রজন্ম-কেনো?

ঋতুরাজ ২৬ নভেম্বর ২০১৩, মঙ্গলবার, ০২:১১:৩০পূর্বাহ্ন বিবিধ ৭ মন্তব্য

আবারও ধ্বংসাত্বক কর্মসুচী-৪৮ঘন্টার সড়ক নৌ রেল পথ অবরোধ!!বাহ্‌-কি দারুন আমাদের রাজনীতি।কোনো পুর্ব ঘোষনা নেই-প্রস্তুতি নেই,রাত ১০টার সময় সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়ে দেয়া হলো ৪৮ঘন্টার অবরোধ!!ফলাফল?যে যেখানে আছো সে সেখানেই থাকবে-তুমি দুবাই যাবে কি সৌদি আরবে-সিঙ্গাপুর বা মালায়েশিয়া তাতে বি এন পির কি আসে যায়? তোমার ফ্লাইট মিস হবে চাকুরী যাবে তোমার পরিবার পথের ভিখারী হবে-হোক! কারও মামলা কোর্টের হাজিরা আছে থাক সে পড়ে-ডাক্তার অভাবে রোগী যদি মরে তাতে কিবা ক্ষতি!!নেত্রী বলেছে দেশ বাঁচাতে হবে যে-মানূষ বাঁচাবার কি দায় আছে?স্কুলের পরীক্ষা-জীবনের প্রথম একটা পাবলিক পরীক্ষা-পরীক্ষার্থী কতই বা হবে-মাত্র ৩০লক্ষ!!বাবারা তোমরা কেনো কষ্ট করে পড়ালেখা করবে-তারচে ভাল-কলমের বদলে হাতে বোমা তুলে নাও-ছুঁড়ে মারো-যদি মারতে না পারো তবে নিজে মরো!!এই তো সুযোগ ক্ষুদিরাম হবার!!কি লাভ লেখাপড়া করে?হবে তো সেই কেরানী বা চাপরাশী-বরং রাজনীতি করো একদিন নিশ্চয় এম পি হবে মন্ত্রী হবে আর যদি না পারো তবে নিশ্চিত কেডার হবে!জেলে যাবে-বাইরে আসবে ফুলের মালা গলায় দিয়ে তোমার নামে স্লোগান হবে-তার পর চাঁদাবাজী-টেন্ডারবাজী-বোমাবাজী–ব্যাস,তুমি নেতা!!প্রিয় বন্ধূরাঃআমরা কি একবারও ভেবে দেখেছি হরতাল অবরোধ আন্দোলন এর নামে আমরা আমাদের আগামী প্রজনমকে কোথায় নিয়ে চলেছি?একবারও কি ভেবে দেখেছি এই ৩০লক্ষ ছেলে মেয়ের বাবা-মা মিলিয়ে ৬০লক্ষ নির্ভেজাল ভোটার!! ৩০লক্ষ পরিবার হিসাব করলে সেই ভোটের পরিমান দেড় কোটির কম হবে না!এই বিপুল পরিমান ভোটারকে এতোটা তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করা কি বুদ্ধিমানের কাজ? গুটিকয়েক রাজনীতিক আমাদেরকে দাবার ঘুটি বানিয়ে তাদের ইচ্ছেমত খেলে চলেছে আমাদেরকে নিয়ে খেলার এই অধিকার তাদের কে দিয়েছে?আচ্ছা-ঐ সমস্ত পরীক্ষার্থীদের সকলেই কি আওয়ামীলীগ দলীওদের সন্তান?সেখানে কি বি এন পি-জামাত-জাতীয় পার্টির ভোটারের সন্তান নেই?উনারা নিজের সন্তানের কাছে কি জবাব দেবেন?বলবেন কি-তোমাদের পরীক্ষা দেবার দরকার নেই আজ অবরোধ??প্রতিটা বাবা-মা;ই স্বপ্ন দেখে তার সন্তান লেখাপড়া শিখে মানূষের মত মানূষ হবে-বাবা-মা;র মুখ উজ্জ্বল করবে-সেই সন্তানের ভবিষ্যৎ পায়ে মাড়িয়ে তার জীবনের প্রথম পাবলিক পরীক্ষা বন্ধ রেখে যারা অবরোধ সফল করতে রাজপথে যাবেন গাড়ী ভাংতে বা আগুন জ্বালাতে-দিনের শেষে ঘরে ফিরে ঐ সন্তানের চোঁখে চোঁখ রেখে কি নিজেকে তার বাবা বলে পরিচয় দিতে পারবেন?বুকটা কি একবারও কেঁপে উঠবে না? ছোট ছোট ঐ বাচ্চাগুলোর কঁচি মুখের দিকে তাকিয়েও তো তাদের বাবা-মা;র বুক ফেঁটে কান্না আসার কথা! শুধুমাত্র ক্ষমতার রাজনীতির শিকার কেনো হবে আমাদের আগামী প্রজন্ম?তাদের জীবন অন্ধকারে ঢেকে দিয়ে আমরা কোন পথে চলেছি-সে কি প্রকান্তরে আত্মহত্যার নামান্তর নয়?আমাদের সন্তানের জ্ঞানের আলো নিভিয়ে দিয়ে কাওকে ক্ষমতার মসনদে বসানোর এই ভয়ঙ্কর খেলা আমি অন্তত সমর্থন করি না-আপনি করেন কি??

১৯৩জন ১৯৩জন
0 Shares

৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য