‘ আমি কিন্তু দেখতে অনেক সুন্দর , এইযে দেখুন আমার ছবি । ব্লুটুথ অন করুন , আপনার মোবাইলের বড় স্কিনে দেখুন , তাহলেই বুঝবেন ‘ । জীবনের উল্টো দিক তাঁর ভাবনার মধ্যেই ছিলনা । তাঁর চিন্তা ছিল ‘ সুস্থ হবার পরে ঝরে পরা চুলগুলো উঠবে তো ? আমি আবার ঠিক মত ক্লাসে যেতে পারবো তো ?
খুব কষ্ট হচ্ছিল তাঁর এসব কথায় । মনে হচ্ছিল আমার ছোট বোনটি কথা বলছে । এখন যেভাবে দেখছি তাঁকে , সে আসলে তেমন নয়।
মোবাইলে ছবি নিয়ে বলি তাঁকে ‘ তুমি আসলেই অনেক সুন্দর , চুল সব ফিরে আসবে , মাথা ভর্তি চুল হবে আবার। সাজতে পারবে সুন্দর করে , এই ছবির মত । আবার ক্লাসে গিয়ে বন্ধুদের সাথে ক্লাস করতে পারবে । ” কান্না চেপেই কথা গুলো বলা তাঁকে। আমাদের কয়েকজনকে দেখে কয়েকদিন পরে তাঁর মুখে হাসি এসেছে , বললেন তাঁর মা ।
গতরাত থেকে বার বার মনে পরে যাচ্ছে তাঁর এসব কথা । কিছুতেই স্বস্তি পাচ্ছিনা । অনামিকা তোকে আমি মিথ্যে বলেছিলাম । তোর মুখে হাসি দেখতে চেয়েছিলাম । শুধু সময়ের অপেক্ষা করছিলাম – কবে শুনবো এমন কঠিন সত্য কথা । আমাদের সাথে থাকা মেডিকেল পড়ুয়া ছাত্র তাঁর রোগের কেস হিস্ট্রি দেখে গোপনে আমাকে বলে দিয়েছিলেন যে সম্ভাবনা নেই আর। কাউকে বলিনি এতদিন। গ্রুপের অন্যরা সবাই হতাশ হতে পারেন ।

ব্লাড ক্যন্সারে আক্রান্ত সিলেটের অনামিকার পাশে দাড়িয়েছিল অনেক মানুষ । অন লাইনে সক্রিয় বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম , ব্লগ , ছাত্র ছাত্রী সবাই চেষ্টা করেছেন অনামিকার পাশে দাড়াতে । সবাই যথাসাধ্য চেষ্টা করেছেন অর্থ সহায়তা দিয়ে অনামিকাকে বাঁচাতে। কিন্তু সবাইকে কাঁদিয়ে অনামিকা চলে গেলো না ফেরার দেশে । শান্তি পাক অনামিকার আত্মা ।

অনামিকাকে দেখতে গিয়েছিলাম ফেইসবুক এর সাহায্য গ্রুপ ‘ আমরা নিজেরাই করবো ‘ সদস্যদের সাথে । বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এ অনামিকার শয্যায় শুয়ে ছিল সে। পাশে বিষণ্ণ অনামিকার মা । অনামিকার ভাবলেশহীন দৃষ্টি ,  ফুলে যাওয়া শরীর , চুলহীন মাথা – সব কিছু দেখে মনটা ভারাক্রান্ত আমাদের সবার ।

আমাদের সবাইকে দেখেই বেড থেকে উঠে বসেছিল অনামিকা ।

রোগের ফাইল দেখছেন বন্দনা কবীর , শিশির কনা । আছেন অনামিকার মা ।


অনামিকাকে ঘিরে থাকা গ্রুপের সদস্যগণ । বন্দনা কবীর , শিশির কনা , দিলরুবা মুন , ফাহিমা কানিজ লাভা , জিয়া ভাই  , ফাহিম মুরশেদ , ভোরের শিশির নিতেশ


গ্রুপের পক্ষ থেকে ৬০ হাজার টাকার আর্থিক সহায়তা অনামিকার মায়ের হাতে তুলে দিচ্ছেন গ্রুপ নেতা বন্দনা কবীর।

 
বিদায়ের আগে শেষ সান্তনা , সাথেই আছি আমরা ।


৩২১জন ৩২১জন
0 Shares

২৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য