অনন্ত জলিল এবং দিন-THE DAY

সাবিনা ইয়াসমিন ২৩ জুলাই ২০২২, শনিবার, ০২:৪০:৩৫পূর্বাহ্ন অন্যান্য ২৩ মন্তব্য

রিক্সা থেকে নেমে মেয়ের হাত ধরে একটু ফাঁকামতো জায়গায় দাঁড়িয়েছিলাম পরের রিক্সায় আসা বোন ভাগ্নী আর ভাতিজার জন্য। ভেতর থেকে স্রোতের মতো মানুষ বের হচ্ছে, কেউ হাসতে হাসতে এর-ওর গায়ে গড়াগড়ি করছে কারো আবার মেজাজ ভীষণ রকম খারাপ দেখলাম। এরই মধ্যে কিছু সাংবাদিক ক্যামেরা নিয়ে এদিক সেদিক দৌড়াচ্ছিলো। আমি আমার মেয়েটির হাত ধরে সামান্য ভেতরে গিয়ে সিনেমার পোস্টার গুলো দেখতে শুরু করলাম। বাংলা সিনেমা দুটো মুক্তি পেয়েছে, পরান আর দিন দ্যা ডে।
মেয়ের এবং হলের ভিতরের কিছু ছবি তুলছিলাম এরইমধ্যে এক সুহাসীনি সাংবাদিক এসে আমার মেয়ের গালে হাত বুলিয়ে জানতে চাইলো আম্মু তুমি কি সিনেমা দেখতে এসেছো? মেয়ের উত্তর না পেয়ে আমাকে জিজ্ঞেস করলো কী ছবি দেখবেন আপু?  বললাম এখনো ঠিক করিনি, আমার সাথে আরও মানুষ আছে, তাদের সাথে কথা বলে দেখি কোনটা দেখা যায়। কিন্তু শেষমেশ আমরা টিকিট পেতে ব্যর্থ হলাম!

সেদিন সনি স্টার সিনেপ্লেক্সে গিয়ে সিরিয়াল ধরে টিকিট না পেয়ে ফিরে এসেছি। অপেক্ষা করছি ভীড় আরেকটু কমলে গিয়ে দেখে আসবো। ছবিটি যেহেতু এখনো নিজে দেখিনি তাই ভালোমন্দ প্রকাশ( রিভিউ) করা থেকে বিরত থাকলাম। তবে সিনেমা হলে গিয়ে কিছু কিছু জিনিস আমার খুবই ভালো লেগেছে যার জন্য আজকের এই পোস্ট।

কিছুদিন আগেও যেখানে বাংলা সিনেমা/সিনেমা হলের দর্শক শুনলে চোখের সামনে কিছু কমন দৃশ্য ভেসে বেড়াতো সেই অবস্থার আমুল পরিবর্তন দেখেছি দিন দ্যা ডে’র বেলায়। স্টার সিনেপ্লেক্সের মতো হলে গিয়ে, কাউন্টারে সামনে দীর্ঘ-লাইন দিয়ে চলতি শো/এডভান্স শো এর জন্য উচ্চমূল্যের টিকিট কেটে দর্শকরা এই মুভিটা দেখছে, দেখার আগ্রহ প্রকাশ করছে। নির্দিষ্ট একটা শ্রেনী বাদ দিলে আপামর মধ্যবিত্ত/নিন্ম মধ্যবিত্ত শ্রেণীর দর্শকেরা হলে গিয়ে সিনেমা দেখা ছেড়েই দিয়েছিল, বিশেষ করে এই প্রজন্মের তরুন তরুনীরা হলে গিয়ে বাংলা সিনেমা দেখার কথা কল্পনায় আনে কিনা সন্দেহ ছিলো। অবাক হয়ে সেইসব হারিয়ে যাওয়া দর্শকদের একটা বিশাল স্রোত দেখেছি সনি স্টার সিনেপ্লেক্সে। উঠতি বয়সী ছেলেপুলে, আধুনিক সাজে সজ্জিত নারী -পুরুষ, তরুণ-তরুণীরা বন্ধুবান্ধবী সমেত সেখানে উপস্থিত। ঝলমলে পোশাক আর নতুন আর্টের মেকাপে সেজেগুজে টিনএজ মেয়েরা গেছে পরিবারের সাথে। কারো কারো সাথে বড় ভাই/বোন/ মা /মামা/চাচা। অনেকে বউ-বাচ্চা নিয়ে গেছে। মোটকথা মানুষের ভিড় এবং তাদের মাঝে সিনেমা দেখার আগ্রহটা ছিল চোখে পড়ার মতো।

দেড় ঘন্টা পর্যবেক্ষণ/আনাতানা শেষে স্টার সিনেপ্লেক্স থেকে ফেরার পথে যেটা মনে এলো, হল মালিকেরা নানা সময়ে নানাভাবে দর্শকদের হলমুখী করার অনেকানেক চেষ্টা সাধনা করেও যা করতে পারেনি সেই অসাধ্য কাজটি সাধন করেছেন অনন্ত জলিল আর তার বহুল আলোচিত/সমালোচিত দিন দ্য ডে’।

৩২০জন ২০জন
0 Shares

২৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ