বইমেলা ২০১৮—-

 লিখেছেন on ফেব্রুয়ারী ৯, ২০১৮ at ১১:০০ অপরাহ্ন  একান্ত অনুভূতি  Add comments
ফেব্রু. ০৯২০১৮
 

কলকাতা বইমেলা! কেন? কি? কিজন্য?— ভাবুন তো ? কাদের জন্য? খাওয়ার জন্য নাচার জন্য পাবলিশিরpublicity জন্য আনন্দের জন্য? প্রশ্ন করুন বারবার অনেকবার — কলকাতা বইমেলা কেই প্রশ্ন করুন ? কেন? কিজন্য ? কি করে?— দেখবেন বইমেলা জুড়ে বিষন্নতা ধিক্কার পদস্খলন — অন্তদৃষ্টিতে অনুভব করুন সাহিত্যের রস নির্মল রস এক অমায়িক অনাবিল নিবিড় শান্তি পাবেন না– চারিদিকে হিংস্রতা স্বার্থপরতা কুটিলতা দমবন্ধ এক বাজার—?

মাথায় এক বোতল জল ঢেলে নিন মুখ মুছে আকাশের দিকে তাকান আকাশের নীল প্রেম যেন আদর করছে– খুব শান্তি —আস্তে আস্তে ঠান্ডা মাথায় সুনীলের কবিতা রবীন্দ্রনাথের কবিতা মনে করুন—দেখবেন গলাকাটা বইমেলা থেকে অনেক বেশী শান্তি–মেলা মানে মিলন প্রঙ্গন লেখক কবিদের ছোট নীচু করা ক্ষেত্র নয়?

আমি বইমেলার জন্য সকাল নয়টায় বেরিয়েছি পৌঁছেছি চারটে —সারাদিন না খাওয়া বমি করতে করতে করুমাময়ী বাসের মহিলা লোকেরা হাসাহাসি করছে এই কথা শুনে যে আমি লেখক আর বইমেলাতে এতদূর থেকে যাচ্ছি—মাথা ঘুরে তিনবার পড়েছি লোকগুলো ভালোই জল দিল বাচ্চাটাকে দেখল—সবচেয়ে বড় কথা মানুষের ধারনা বইমেলাতে আবার কেউ যায় নাকি? বইমেলা মানেই আড্ডা আর খাওয়ার মেলা— মানুষ শুধু সাজতেই আর খেতে ই আসে টুকটাক কুইজ তারপর বাড়ি? বিধাননগর পুলিশদের পরিষেবা সত্যি খুব ভালো নাহলে হয়তো বাড়ি ফিরতে পারতাম না–

কিছু বই আর ব্যাগ কিনে মাথায় জল ঢেলে একটুখানি বসে ছিলাম আবার ঘুরছি স্টলে গিয়ে বললাম( কবিতীর্থ মনে হয় –) জুবিন ঘোষ ,অনুপম মুখোপাধ্যায় ,মলয় রায় চৌধুরী ,. তসলিমা নাসরিন. , বিশ্বরূপ দে সরকার র বই আছে—মাথা ঘুরছিল নম্বর দেখিনি– তঁার মধ্যে কিছু মানুষের কথা শুনে মাথা গেল বিগড়ে— এইসকল কবিরা নাকি ভালো না— ড্যাঞ্জারাস ইত্যাদি ইত্যাদি—- ভাবুন বইমেলাতে কবিদের সম্মান– যা রাগ উঠেছিল মনে হচ্ছেল টেবিল ভেঙ্গে চলে আসি— ! কে হয়? কেন কিনছেন? চেনেন নাকি? ভাবছিলাম বলব সবাই আমার মামা!
কি অবস্থা পাবলিক কদিন বাদে তো শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায় কেও দেখি গালিগালাজ দিতে শুরু করবে? কবি লেখকদের কি অবস্থা ! কবিতা না লিখে নিজেরা ফিল্ম বানান অভিনয় করুন কাজে দেবে–?

—————
অরুণিমা মন্ডল দাস
কলকাতা, ভারত।

  ২টি মন্তব্য, “বইমেলা ২০১৮—-”

    
  1. 
  2. হ জ ব র ল অবস্থা। সবই অতিরঞ্জিত অবস্থা।